সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এমনিতে তিনি যতই আধুনিক হোন না কেন, দেখা গেল, মেয়ের ব্যাপারে সনাতন ভারতীয় পথেই হাঁটছেন শাহিদ কাপুর। সে ব্যাপারে সায় আছে তাঁর স্ত্রী মীরার। সায় আছে বাবা পঙ্কজ কাপুর এবং পরিবারেরও!
ব্যাপারটা কী?
যে দিন থেকে খবর পাওয়া গিয়েছিল শাহিদ-মীরার একটি ফুটফুটে মেয়ে হয়েছে, সে দিন থেকে শুরু হয়েছিল জল্পনা-কল্পনা- নবজাতিকার কী নাম রাখবেন শাহিদ-মীরা? এই নিয়ে বেশ কিছু ভুয়া খবরও রটেছিল স্বাভাবিক ভাবেই!
ও দিকে মেয়ে জন্মানোর পর প্রায় এক মাস গড়াতে চলল! আর, মুখে কুলুপ এঁটে বসে রইলেন কাপুর-দম্পতি। কিছুতেই তাঁরা জানাবেন না, মেয়ের কী নাম রাখা হবে!
আপনি বলতে অবশ্য পারেনই- যাঁদের মেয়ে তাঁরা বুঝবেন ব্যাপারটা! এ নিয়ে অন্যের মাথা ঘামানো যুক্তিসঙ্গত নয়। কিন্তু, ব্যাপারটা ঠিক তা নয়। খবর বলছে, মেয়ের নাম সংবাদমাধ্যমের কাছ থেকে লুকিয়ে রাখার বাসনা শাহিদ, মীরার ছিল না! তাঁরা আসলে মেয়ের কোনও নাম ঠিকই করেননি!

কারণ কাপুর পরিবারের কুলগুরু! তিনি থাকেন অমৃতসরে। পরিবারের নিয়ম অনুযায়ী, নবজাতক/নবজাতিকা কাপুরের নাম রাখার হকদার কেবল তিনিই! তাঁর আশীর্বাদেই না কি লুকিয়ে আছে ছোট্ট অতিথিটির উজ্জ্বল ভবিষ্যতের সম্ভাবনা।
মেয়ে সামান্য বড় হওয়ার পর, মীরা স্বাভাবিক জীবনে ফেরার পর তাই আর দেরি করেনি কাপুর পরিবার। সম্প্রতি শাহিদ, মীরাকে সঙ্গে নিয়ে অমৃতসর রওনা দেন পঙ্কজ কাপুর। সেই কুলগুরুই অতঃপর ঠিক করে দেন মেয়ের নাম। মীরা আর শাহিদের নামের ইংরেজি আদ্যক্ষর নিয়ে মেয়ে নাম পায় মিশা।
সেই খবর তার পরেই টুইট করে জানিয়েছেন শাহিদ। লিখেছেন, ”মিশা কাপুরের জন্য বাবার কোথাও যাওয়াটাই মুশকিল!”
স্বাভাবিক! এই যে অমৃতসরে গিয়েছিলেন শাহিদ-মীরা, মিশা নিশ্চয়ই সেই সময়টায় তাঁদের চোখে হারিয়েছে!

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।