সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একদা জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন ইয়াহুকে আর ফিরে পাবেন না নেট ইন্টারনেট ব্যবহারীরা৷ ভেরিজোন নামে অপর এক সংস্থা ৪.৮৩ বিলিয়ন ডলারে (ভারতীয় মুদ্রায় ৩২,৫৪২,৩৪,২৩,৫০০ কোটি টাকা) ইয়াহুকে কিনে নিতে সম্মত হয়েছে৷ফলত স্বাধীন কোম্পানি হিসেবে ইয়াহুর অস্তিত্ব আর থাকছে না৷

কিন্তু কেন ইয়াহুর এমন দশা? কেনই বা একটা গোটা সংস্থাকে বিক্রি করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হল?

এই সিদ্ধান্তের পিছনে যে যে কারণগুলি উঠে আসছে, সেগুলি হল-

১) ২০০৮ সালে ব্যবসায় শীর্ষে ওঠে ইয়াহু৷ কিন্তু ধীরে ধীরে তার পতন শুরু হয়৷ পরিকাঠামোগত পরিবর্তন ও অন্যান্য পরিবর্তন এনেও ফেসবুক ও গুগলের জনপ্রিয়তার সঙ্গে পেরে ওঠেনি সংস্থাটি৷ সার্চ ইঞ্জিন হোক কিংবা মেল-এর দিক থেকে অনেক এগিয়ে যায় গুগল৷

২) বেশ কিছু সিদ্ধান্ত ইয়াহুর পক্ষে বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়ায়৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় টেক্কা দিতে গিয়ে তাম্বলার নামে এক সোশ্যাল ব্লগিং সার্ভিস কিনে নেয় ইয়াহু৷ কিন্তু ফেসবুকের জনপ্রিয়তার ধারেকাছে তো পৌঁছয়নি সেটিও, আদতে এ সাইটকে ফ্লপ বললে অত্যুক্তি করা হয় না৷ এই লোকসানও কোম্পানির পক্ষে যথেষ্ট ক্ষতিকর হয়৷

৩) সময়ের সঙ্গে গুগল ও ফেসবুক যেভাবে নিজেদের পরিবর্তন করেছে, সেইভাবে বিবর্তিত হতে পারেনি ইয়াহু৷ ফলে জনপ্রিয়তা হারিয়েছে ব্যবহারকারীদের মধ্যে৷

৪) মার্কিন মুলুকের সবথেকে বেশি বেতনের মহিলা সিইও মারিসা মায়ের কাজ করেন এই সংস্থায়৷ সবরকম প্রতিকূলতার মধ্যেও তিনি কাজ চালিয়ে গিয়েছেন৷ এখন যদিও প্রশ্ন উঠছে তাঁর দক্ষতা নিয়ে৷ কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে ইয়াহু যেভাবে পিছিয়ে পড়েছিল, সেই ডুবন্ত তরীকে আর তুলে আনতে পারেননি তিনি৷

কী লাভ হবে ভেরিজোনের?

এই মুহূর্তে ভেরিজোনের ইউনিক ব্যবহারকারী প্রতি মাসে প্রায় ১৫০ মিলিয়ন৷ ইয়াহুর থেকে আরও ২০০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী পেতে চলেছে সংস্থাটি৷ ফলে সংস্থার ব্যবসা যে কয়েক গুণ বাড়ল তা বলাই বাহুল্য৷

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।