অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ অতিরিক্ত স্থুলতা জীবন থেকে আটটি বছর কেড়ে নেয়ার পাশাপাশি মানুষকে চিররুগ্ন করে দিতে পারে। কানাডার এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে। প্রতিবেদনে দেখা যায়, তরুণ বয়সে স্থুলতা স্বাস্থ্যের জন্য আরো বেশি ক্ষতিকর। কানাডার ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদল বলেছেন, হৃদরোগ এবং টাইপ-টু ডায়বেটিস শারীরিক অক্ষমতা ও মৃত্যুর বড় কারণগুলোর অন্যতম। যদিও সবাই জানে স্থুলতা থেকে নানা ধরণের স্বাস্থ্যগত সমস্যার সৃষ্টি হয়। তারপরও মানুষ প্রতিনিয়তই ক্রমাগত মুটিয়ে যাওয়াকে হেলাফেলা করে। কম্পিউটার মডেল ব্যবহার করে করা এ গবেষণায় দেখা যায়, ২০ থেকে ৩৯ বছর বয়সী ব্যক্তি যারা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী তারা একই বয়সী স্থুলকায় ব্যক্তিদের তুলনায় বেশিদিন বাঁচে। পুরুষরা বাঁচে প্রায় সাড়ে আট বছর বেশি এবং নারীরা ছয় বছরেরও বেশি সময় বেঁচে থাকে। এছাড়া, স্থুলকায় ব্যক্তিরা গড়ে প্রায় ১৯ বছর অসুস্থ অবস্থায় জীবন যাপন করে। ৪০ থেকে ৫০ বছর বয়সে যারা অতিরিক্ত মোটা হয় তাদের ক্ষেত্রে পুরুষরা প্রায় সাড়ে তিন বছর এবং নারীরা প্রায় সাড়ে পাঁচ বছর কম বাঁচে। এছাড়া, ষাট বছর ও ষাটোর্ধ্ব ব্যক্তিরা স্থুলতার কারণে জীবন থেকে এক বছর করে হারিয়ে ফেলে এবং ৭ বছর রুগ্ন জীবন যাপন করে। প্রফেসর স্টিভেন গ্রোভার বলেন, “আমাদের গবেষণায় দেখা গেছে, স্থুলতার কারণে হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং ডায়বেটিসের মতো রোগ হওয়ার প্রবণতা বেড়ে যায়। এসব রোগের কারণে জীবন শক্তি দ্রুত হ্রাস পায়।” “বিষয়টি খুবই পরিষ্কার। যত কম বয়সে যত বেশি ওজন বাড়বে তা স্বাস্থ্যের ওপর তত নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।