অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ ‘সবাই তো সুখী হতে চায়। তবু কেউ সুখী হয়, কেউ হয় না। জানিনা বলে যা লোকে সত্যি কিনা? কপালে সবার নাকি সুখ সয় না।’ মান্না দের বিখ্যাত গানটি শুনেননি এমন বাঙালী শ্রোতা কমই আছেন। এ গানে সুখকে ‘পাখি’ হিসেবে অভিহিত করা হয়েছে। এ এমন এক ‘পাখি’ যার আসা-যাওয়া দেখা যায় না। তারপরও মানুষ তাকে চায়। কেন? এর কারণ হল ‘সুখ’কে অর্থে বিবেচনা করা হয় না। এ হল একটি মানসিক অবস্থা। যাকে নাকি দুনিয়ার সকল সম্পদের বিনিময়ে কেনা যায় না। এর জন্য চাই সুখকে অনুধাবনের মনস্তত্ব।

নেতিবাচক ধারণাকে সরিয়ে রাখতে হবে, নিজের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির সীমা নির্ধারণ করতে হবে। শুধু প্রাপ্তিকেই সুখের উপকরণ ভাবলে ভুল। বরং অপ্রাপ্তিতেও সুখ ধরা দিতে পারে। নিচে ৫টি অভ্যাসের কথা বলা হল, যা আপনাকে সুখী হতে সাহায্য করবে। কিন্তু একে সুখের গোল্ডেন রুলস বা সুবর্ণ নিয়ম ভাবলে ভুল হবে। বরং, জীবনটাকে আপনাকেই সাজাতে হবে। এ ধরনের ইতিবাচক মনোভাবে আপনাকে উদ্দীপ্ত করবে। নিজের অন্তরাত্মাকে বুঝার চেষ্টা করুন। অন্যের প্রত্যাশা বা চলতি সময়ের নিরিখে নিজেকে বিচার করবেন না। নিজের প্রত্যাশা বুঝতে চেষ্টা করুন। তখন জানবেন কিসে আপনার সুখ, কিসে অসন্তুষ্টি। আপনি যা করতে চান না, তা অন্যের ইচ্ছেয় করা থেকে বিরত থাকুন। না বলতে শিখুন। নিজের সিদ্ধান্তে সৎ থাকুন। মনোযোগ ঠিক রাখুন।

আমরা মুহূর্তেই বাঁচি। কিন্তু চোখ মেললেই দেখবেন জীবনের সবকিছু পরম্পরাগতভাবে সংযুক্ত। হুটহাট অনেক কিছুই করতে পারেন। মনে রাখুন, প্রতিটি কাজে চাই যথাযথ পরিকল্পনা। কোনো ছোট কাজই ফেলে রাখবেন না। পরিকল্পনার সময় আপনার সামর্থ্য, সময় ও টাকার কথা ভেবে রাখুন। সবকিছু এমনভাবে গুছিয়ে করুন, যাতে না আবার নিজের উপর বিরক্ত হতে হয়। সবকিছু ব্যক্তিগতভাবে নিবেন না। কার্য-কারণ সূত্রে চিন্তা করলে দুনিয়ার সবকিছুর সঙ্গে হয়ত আপনার সম্পর্ক আছে। কিন্তু সবকিছু আপনাকে ঘিরে হয় না। তাই যে কোনো কিছু নিয়ে টেনশন করবেন না। যেমন— আপনার বন্ধুর সকল ফেসবুক স্ট্যাটাস আপনার জন্য নয়। অন্যরা কী করে তা দেখুন। তা থেকে শিখুন। তবে সব শিক্ষাকে উদ্দেশ হিসেবে নিবেন না। নিজেরও কিছু লক্ষ ঠিক করুন। জীবনকে উপভোগ করুন। এভাবে ছোট ছোট হাসি-আনন্দ, প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তি দিয়ে আপনার জীবন পূর্ণ হয়ে উঠবে। এমন কিছু কিনবেন না যা আপনার প্রয়োজন নেই। এমন কর্মকাণ্ড বলে দেয় কিসে আপনার সুখ বা আনন্দ, তা আপনি জানেন না। বাহুল্য বাদ দিন। সব সময় সিম্পল থাকার চেষ্টা করুন। তাহলে জীবনের বহমানতা ও সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন। নয়ত নানান কিছুর ভিড়ে জীবনকে বুঝতেই পারবেন না। শুধু মরীচিকার পেছনে ঘুরবেন। দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন। দুশ্চিন্তা কোনো কিছুর সমাধান নয়। এর বদলে মাথা ঠিক রেখে চিন্তা করুন কিসে সমস্যার সমাধান আছে।

সুত্রঃ bhorerkagoj.net

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।