অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ পাটশাকে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, অ্যালকালয়েড, সোডিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, প্রোটিন, লিপিড, কার্বোহাইড্রেট এবং ফলিক অ্যাসিড। দেশীয় অন্যান্য শাকের তুলনায় পাটশাক তুলনামূলক সস্তা ও সহজলভ্য। অন্যান্য শাকের তুলনায় পাটশাকে ক্যারোটিন তথা ভিটামিন এ-ও থাকে অনেক বেশি পাটশাক খাওয়ার রুচি বৃদ্ধি করে এবং মুখের স্বাদ ফিরিয়ে আনে। পাটশাকে রয়েছে ভিটামিন সি ও ক্যারোটিন যা মুখের ঘা দূর করতে সাহায্য করে। রাতকানা রোগের বিরুদ্ধে লড়তে পাটশাক সাহায্য করে। যারা কোষ্ঠকাঠিন্য ভুগছেন, তারা নিয়মিত পাটশাক খেলে উপকার পাবেন। যাদের বাতে ব্যথা আছে তাদের জন্য পাটশাক উপকারী। দীর্ঘদিনের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা দূর করতে পাটশাক সহায়তা করে। রক্ত পরিষ্কারক হিসেবেও পাটশাক উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে। পাটশাকে টিউমার ও ক্যান্সার প্রতিরোধক উপাদান রয়েছে।  হাড়ের ভক্সগুরতা রোধ করতে ও হাড় ভালো রাখতে খেতে পারেন পাটশাক। পাটশাক দাঁত ও মুখের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করে।

প্রতি ১০০ গ্রাম পাটশাকে রয়েছে: খাদ্যশক্তি – ৭৩ ক্যালরি, আমিষ – ৩.৬ গ্রাম, ক্যালসিয়াম -২৯৮ মিলিগ্রাম, লৌহ – ১১ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন – ৬৪০০ আইইউ

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।