‘পরিশ্রম না করা এবং অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের কারণে এই রোগের ঝুঁকি বাড়ছে’

অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ আধুনিক জীবন ধারায় কমবয়সী বা অল্পবয়সী যুবক-যুবতীদের মধ্যে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের ঝুঁকি ভয়াবহ আকারে । কিছুদিন আগেও স্ট্রোক অথবা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের ঝুঁকি ষাটর্ব্ধোদের মধ্যে দেখা গেলেও, বর্তমানে ৩০ এমনকি ২০ বছরের কম বয়সীদেরকেও এই রোগে আক্রান্ত হতে দেখা যাচ্ছে। বর্তমানে সারা বিশ্বের কর্মক্ষম তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ভয়াবহ আকারে ছড়িয়ে পড়েছে স্ট্রোকের ঝুঁকি। স্ট্রোক এসোসিয়েশনের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৪ সালে শুধুমাত্র ব্রিটেনে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ৪০-৫৪ বছর বয়স্ক ছয় হাজার ২২১জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। যা গত ১৪ বছর আগের চেয়ে এক হাজার ৯৬১জন বেশি।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অস্বাস্থ্যকর জীবন ব্যবস্থা এই রোগ বৃদ্ধির অন্যতম প্রধান কারণ। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত রোগে প্রভাব শরীরে দীর্ঘমেয়াদী ক্ষতির কারণ। অনেক ক্ষেত্রে শরীরের কোনো কোনো অংশ চিরদিনের জন্যে অকেজো হয়ে যেতে পারে। সাধারনত ৬৫ বছরের অধিক বয়ষ্কদের মধ্যে স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি থাকে। কিন্তু বর্তমানে আশঙ্কাজনক হারে এই রোগের ঝুঁকি তরুণদের মধ্যে বাড়ছে। ২০০০-২০১৪ সাল পর্যন্ত এই ১৪বছরের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে ৪০-৫০ বছর বয়স্কদের মধ্যেই মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের প্রবণতা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। ২০০০ সালের তুলনায় ২০১৪ সালে ব্রিটেনে ৪০-৫৪ বছর বয়স্ক অতিরিক্ত এক হাজার ৭৫জন নারী মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের শিকার হয়েছেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ওজন, পরিশ্রম না করা এবং অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের কারণে এই রোগের ঝুঁকি বাড়ছে। শুধু শারীরিক সমস্যাই নয়, এই রোগের বিরূপ প্রভাব পড়ছে অর্থনীতিতেও। কারণ কর্মক্ষম এসব লোকের আক্রান্ত হওয়ার ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে আয়ের উৎস এবং সেই সঙ্গে তাদের পরিবারও। এসব রোগীদের সেরে উঠতে প্রচুর সময় প্রয়োজন। এছাড়াও পরবর্তীতে স্বাভাবিক কাজকর্মে ফিরে যেতে তাদের বেশ বেগ পোহাতে হয়। স্ট্রোক এসোসিয়েশনের পক্ষে জন ব্যারিক বলেন, ‘এসব তথ্যই বলে দেয় মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ এখন আর শুধুমাত্র বয়স্কদের রোগ নয়। কর্মক্ষম লোকেদের মধ্যেও এই রোগের ঝুঁকি ভয়াবহ ভাবে বাড়ছে। শুধুমাত্র আক্রান্তদের মধ্যেই নয়, তাদের পরিবার এবং সমাজও এর ভয়াবহতার শিকার হচ্ছে।’ বৃটিশ হার্ড ফাউন্ডেশনের চিকিৎসক মাইক ক্যানাপটন বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ। এই পরিস্থিতিকে সমাজের গুরুত্বে সঙ্গে বিবেচনা করা উচিত।’ সেই সঙ্গে উচ্চ রক্তচাপ এবং কোলেস্টোরল নিয়ন্ত্রণের গুরুত্বের কথাও বলেছেন তিনি। এছাড়া ৪০-য়ের বেশি বয়স্কদের নিয়মিত চিকিৎসা গ্রহনের পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

সুত্রঃ bhorerkagoj.net

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।