অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ প্রতিদিন এক ঘণ্টা থেকে দুই ঘণ্টা করে টেলিভিশন দেখলে, বেড়ে যায় শিশুর ওজন । সম্প্রতি এক গবেষণায় এই তথ্য পাওয়া গেছে। গবেষণার প্রধান এবং ইউনিভার্সিটি অব ভার্জিনিয়ার পেডিয়াট্রিকস বিভাগের অধ্যাপক ড. মার্ক ডিবোর বলেন, যেসব কিন্ডার গার্টেন ও ওয়ান গ্রেডে পড়ুয়া শিশু প্রতিদিন এক থেকে দুই ঘণ্টা টিভি দেখে তারা বেশি মোটা হয়ে যায়। অন্য বাচ্চা যারা এই পরিমাণ টিভি দেখে না তারা অতটা মুটিয়ে যায় না।স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়েব এমডিতে প্রকাশিত হয়েছে এই প্রতিবেদন। এর আগে কিছু গবেষণায় দেখা যায়, অতিরিক্ত টেলিভিশন দেখার সঙ্গে মোটা হওয়ার একটি যোগসূত্র রয়েছে।তবে সম্প্রতি গবেষণাটিতে বলা হয়, নিদির্ষ্ট সময়ের সঙ্গেও এর যোগ রয়েছে।২০১১ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ১১ হাজার শিশুর উপর গবেষণাটি চালানো হয়। এক বছর পর আবারও একই বিষয়ের ওপর শিশুদের মূল্যায়ন করা হয়। গবেষণায় দেখা যায়, কিন্ডার গার্টেনে পড়ুয়া যে শিশুরা নিয়মিত দুই ঘণ্টা টিভি দেখে তাদের অস্বাস্থ্যকরভাবে ওজন বৃদ্ধি পায়। ড. ডিবোর বলেন, যেসব কিন্ডার গার্টেনে পড়ুয়া শিশু এক থেকে দুই ঘণ্টা টেলিভিশন দেখে তাদের মধ্যে ৪৩ শতাংশ ওজনাধিক্যের সমস্যায় ভোগে। ৪৭ শতাংশ শিশু ওজন বাড়ার দিকে ধাবিত হয়।

এই গবেষণা করা হয়েছে টিভি দেখার সময়ের ওপর। তবে কম্পিউটার ব্যবহারকারী শিশুদের সঙ্গে এর সম্পর্ক পাওয়া যায়নি। মায়ামির নিকোলাস চিলড্রেন্স হাসপাতালের ওজন ব্যবস্থাপনা প্রোগামের পরিচালক ড. উইলিয়াম মুইনোস বলেন, তবে সংখ্যা এখানে ততটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। অন্যান্য অস্বাস্থ্যকর অভ্যাসও শিশুদের ওজন বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য দায়ী।যেমন, অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া এবং নিয়মিত ব্যায়াম বা খেলাধূলা না করা, বেশি বসে থাকা ইত্যাদি। ওজন বাড়ে আসলে অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস থেকে। তাই অস্বাস্থ্যকর অভ্যাস পরিবর্তন করা জরুরি। যুক্তরাষ্ট্রের একাডেমি অব পেডিয়াট্রিক্স পরামর্শ দিয়েছে, দুই বছরের নিচের শিশুদের টিভি দেখা থেকে বিরত রাখতে হবে। আর একটু বড় শিশুদের টিভিতে বিনোদনের সময় নির্দিষ্ট করে দিতে হবে। ড. ডিবোর বলেন, এএপির এই নীতির পুনর্বিবেচনা করার সময় এসেছে এখন। ড. উইলিয়াম মুইনোসের মতে, শিশুরা এক ঘণ্টা টিভি তখনই দেখতে পারবে যদি তারা নিয়মিত শরীরচর্চা করে। কেননা অতিরিক্ত বসে থাকলে দেহের ক্যালোরি ক্ষয় হয় না। ফলে ওজন বাড়ে। গবেষণাটি উপস্থাপন করা হয় সান দিয়াগোর পেডিয়াট্রিক একাডেমি সোসাইটির বার্ষিক সভায়।

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।