অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্ক: পশ্চিম আফ্রিকার দেশ লাইবেরিয়াকে ইবোলা-মুক্ত ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।  জেনেভায় সংস্থাটির সদর দফতর থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত ৪২ দিনের মধ্যে লাইবেরিয়ায় নতুন কোনো সংক্রমণের ঘটনা ঘটে নি। বলা হয়, মানবদেহে ইবোলা জীবাণুর সুপ্তিকাল হল ২১ দিন। তার দ্বিগুণের বেশি সময়েও যেহেতু নতুন কোন সংক্রমণের খবর আসে নি – তাই বলা চলে যে ইবোলা মহামারীর অবসান হয়েছে। লাইবেরিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেছেন তিনি ব্যাপকভাবে স্বস্তিবোধ করছেন এবং আশা করছেন প্রতিবেশি দেশ সিয়েরা লিওন এবং গিনিকেও অচিরে ইবোলা-মুক্ত ঘোষণা করা সম্ভব হবে। ইবোলা সংক্রমণে লাইবেরিয়ায় মৃত্যুর সংখ্যা ছিল সর্বোচ্চ  সেখানে এই রোগে প্রাণ হারায় ৪ হাজার ৬০০ মানুষ। ছয় মাস আগেও লাইবেরিয়াতে প্রতি সপ্তাহে শত শত ইবোলা আক্রান্ত রোগীতে ঠাসা ছিল দেশটির হাসপাতালগুলো। রাস্তায় রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে মৃতদেহ। গোটা পূর্ব আফ্রিকায় ১১ হাজারেরও বেশি লোক প্রাণ হারায় এই ইবোলা রোগে। তাই অক্সফ্যাম, ইউনিসেফ এবং ডক্টর্স উইদাউট ফ্রন্টিয়ার্সের মতো ত্রাণ সংস্থাগুলো লাইবেরিয়ায় সংক্রমণ বন্ধের খবরকে একটা বড় সাফল্য হিসেবেই বিবেচনা করছে।

ত্রাণ সংস্থাগুলো অবশ্য বলছে, যেহেতু গিনি এবং সিয়েরা লিওনে এখনো ইবোলার সংক্রমণ হচ্ছে, তাই আত্মসন্তুষ্টির কোন সুযোগ নেই। এই প্রাণঘাতী রোগের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। ইবোলা মহামারীতে শত শত শিশু এতিম হয়েছে, বিনিয়োগকারীরা এই রোগের ভয়ে বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হচ্ছে – ফলে লাইবেরিয়ার ভঙ্গুর অর্থনীতিতে এর বিরূপ প্রভার পড়েছে ইতিমধ্যেই। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা যে ভাবে ইবোলা সমস্যার মোকাবিলা করেছে, তাতে বিলম্বের অভিযোগ তুলে তাদের সমালোচনা হয়েছে। এ নিয়ে একটি তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে আগামী সপ্তাহে।

সুত্রঃ বিবিসি 

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।