অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ বাংলাদেশে প্রতি বছর প্রিম্যাচিউর বেবী জন্মের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। প্রিম্যাচিউর বেবি জন্মের ফলে মৃ্ত্যুর হারও দিন দিন বাড়ছে। বাংলাদেশ শিশুচিকিৎসক সমিতির যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক ডা. একেএম আমিরুল মোরশেদ খসরু বলেন-দেশে প্রতি বছর ৪ লাখ ৩৭ হাজার শিশু প্রিম্যাচিউর জন্মগ্রহণ করছে। শিশুমৃত্যুর ৪৫ শতাংশই ঘটছে শুধু প্রিম্যাচিউর বেবির ক্ষেত্রে। প্রিম্যাচিউর শিশুদের মধ্যে যারা বেঁচে থাকে তারাও পরে নানা অসুখে ভোগে। এ বিষয়ে পুষ্টি বিশেষজ্ঞরা বলছেন পুষ্টির সঙ্গে স্বাস্থ্য এবং স্বাস্থ্যের সঙ্গে নিরাপদ মাতৃত্বের একটি নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে, গর্ভধারণকালে মায়ের মধ্যে অপুষ্টি দেখা দিলে ভ্রুণের ওপরও তার প্রভাব পড়ে। ইউনিসেফ বাংলাদেশ সূত্রে জানা যায়, বিশ্বে গড়ে প্রতিদিন ১০০ শিশুর ১০ জন প্রিম্যাচিউর জন্মায়। বাংলাদেশে প্রতি ১০০ বেবির ১৪ জন প্রিম্যাচিউর। ৩৭ সপ্তাহ বা ২৫৯ দিন পূর্ণ হওয়ার আগে জন্ম নেয়া শিশুকে প্রিম্যাচিউর বেবি বলা হয়। সন্তানসম্ভবা মায়েদের পুষ্টি বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পুষ্টিবিজ্ঞান ইন্সটিটিউটের অধ্যাপক ড. খালেদা ইসলাম বলেন, নিরাপদ মাতৃত্ব লাভের ক্ষেত্রে পুষ্টিশিক্ষা বিশেষভাবে সাহায্য করে। পুষ্টিশিক্ষার গুরুত্বপূর্ণ দিক হল- অতি দামি মানেই অতি পুষ্টিযুক্ত খাদ্য নয়। গ্রামাঞ্চলের মহিলাদের ক্ষেত্রে স্থানীয়ভাবে প্রাপ্ত স্বল্পমূল্যের দানাশস্য থেকেই পুষ্টি চাহিদা পূরণ করা যায়। দানাশস্য, শাকসবজি, দুধ, ডিম, চিংড়ি এবং ছোট মাছ থেকে পর্যাপ্ত পুষ্টি পাওয়া যায়।

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।