অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ ভিটামিন ‘এ’ মানবদেহে অন্ধত্ব নিবারণ,হাড়ের বৃদ্ধি, কোষ বিভাজন,প্রজনন এবং ত্বক ও শ্লেষ্মাঝিল্লিকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। এছাড়াও খাদ্য পরিপাক ও ক্ষুধার উদ্রেক করতে সহায়তা করে। রক্তের স্বাভাবিক অবস্থা বজায় রেখে দেহ সুস্থ রাখে।ভিটামিন ‘এ’ এর অভাবে রাতকানা ও অন্ধত্ব রোগ হয়।চোখের রেটিনা ও কর্নিয়া নস্ট হয় চুল,ত্বক শুষ্ক হয়।হাত-পায়ের নখ ভেঙ্গে যায়।ভিটামিন ‘এ’ এর নিরবিচ্ছিন্ন অভাবের ফলে আবরণীর কালার কোষগুলো ক্ষয়প্রাপ্ত হয়। ফলে রোগজীবানুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় এবং স্নায়ুবিক অসুস্থতা দেখা দেয়।

দৈনিক ১-৩ বছরের শিশুর ২০০০ আইইউ,৪-৬ বছরের শিশুর ২৫০০ আইইউ,৭-১০ বছরের শিশুর ৩৫০০ আইইউ,১১-১৮ বছরের যুবকের ৫০০০ আইইউ,যুবতির ৪০০০ আইইউ এবং ১৯ বছরের উপরে ৫০০০ আইইউ পরিমাণ ভিটামিন‘এ’ প্রয়োজন।

Vitamin-Aভিটামিন‘এ’ এর ট্যাবলেঠ বা ক্যাপসুল খাওয়ার চেয়ে প্রাকৃতিক উৎস থেকে ভিটামিন ‘এ’ খাওয়া ভাল। গাঢ় সবুজ রঙের ১০০ গ্রাম শাক সবজীতে (যেমন-কচুশাক,ডাঁটা শাক,পালংশাক,পুঁইশাক,মুলাশাক,ব্রোকলি,কলমি শাক) ৫০০০ আইইউ ভিটামিন ‘এ’ থাকে।হালকা সবুজ রঙের শাকসবজিতে ২০০০ আইইউ ভিটামিন‘এ’ থাকে।হলুদ ও কমলা রঙের ১০০ গ্রাম শাকসবজী ও ফলে(যেমন-গাঁজর,পাকা পেঁপে,পাকা আম,মিষ্টি কুমড়া,পাকা টমেটো ইত্যাদি) ভিটামিন ‘এ’ থাকে ১০০০-৫০০০ আইইউ।এ ছাড়াও ৮৫ গ্রাম গরুর যকৃতে ৩০৩২৫ আইইউ,মুরগির যকৃতে ১৩৯২০ আইইউ,এক কাপ দুধে ৩০৫ আইইউ,১টা ডিমে ২৪০ আইইউ ও একটা কমলাতে ৩৭৫ আইইউ ভিটামিন ‘এ’ থাকে।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।