অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ দেশে বিভিন্ন ধরনের হৃদরোগে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। সঠিক পরিসংখ্যান না থাকলেও একটি বেসরকারি সংস্থার জরিপে বলা হয়েছে, হৃদরোগে আক্রান্ত শিশুর সংখ্যা বর্তমানে তিন লাখেরও বেশি। বিদেশ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে আসা মাত্র ১১ জন চিকিৎসকের ওপর নির্ভরশীল দেশের শিশু হৃদরোগের বিশেষায়িত চিকিৎসাসেবা। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওলজি বিভাগের অধীনে ১৫ শয্যার একটি শিশু কার্ডিওলজি ইউনিট চালু থাকলেও হৃদরোগ ইনস্টিটিউট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, মিটফোর্ড হাসপাতালসহ দেশের অন্যান্য হাসপাতালে শিশু কার্ডিওলজি বিভাগ নেই। বিএসএমএমইউতে শিশু হৃদরোগের উচ্চ শিক্ষার এমডি পেডিয়াট্রিক কার্ডিওলজি কোর্স চালু করা হলেও সার্জারি ক্ষেত্রে এমএস কোর্স চালু হয়নি।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের তথ্যমতে, প্রতি হাজারে একজন করে নবজাতক জন্মগত হৃদরোগে আক্রান্ত হচ্ছে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে শিশু হৃদরোগীর চাপ উদ্বেগজনক বলে জানিয়েছেন হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসকরা। হৃদরোগ ইনস্টিটিউট থেকে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, ২০০২ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত এই বিশেষায়িত হাসপাতালে ৮৮ হাজার ৫৬৭ শিশু হৃদরোগী চিকিৎসা নিয়েছে। ২০০২ সালে ৪ হাজার ৬৭৪, ২০০৩ সালে ৫ হাজার ১৫০, ২০০৪ সালে ৪ হাজার ৮৫৭, ২০০৫ সালে ৫ হাজার ৪৯৭, ২০০৬ সালে ৬ হাজার ৬০, ২০০৭ সালে ৭ হাজার ৪১৭, ২০০৮ সালে ৮ হাজার ৫৩৪, ২০০৯ সালে ৯ হাজার ৩৬৭, ২০১০ সালে ৯ হাজার ৭২৬, ২০১১ সালে ৯ হাজার ৮০২, ২০১২ সালে ৯ হাজার ৭২১ এবং ২০১৩ সালে ৭ হাজার ৭৬২ শিশু হৃদরোগী জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে চিকিৎসা নিয়েছে। এই পরিসংখ্যান থেকে দেখা যায়, প্রতি বছর ৭ হাজার ৩৮১ শিশু হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। এদের মধ্যে বছরে সাধারণ ও ওপেন হার্ট মিলিয়ে প্রায় ৮০০ সার্জারি এবং প্রায় ছয় হাজার ক্যাথ করা হয়েছে। অথচ এই হাসপাতালেই পৃথক শিশু কার্ডিওলজি বিভাগ নেই।

বিএসএমএমইউ ছাড়া দেশের অন্য কোনো হাসপাতালে পৃথক শিশু কার্ডিওলজি বিভাগ না থাকায় শিশু হৃদরোগীদের চিকিৎসাসেবা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এ ছাড়া প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতিরও স্বল্পতা রয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, উন্নত বিশ্বে প্রতি হাজারে ৬ থেকে ৮টি শিশু জন্মগত হৃদরোগে আক্রান্ত হচ্ছে। তবে বাংলাদেশে একটি বেসরকারি সংস্থার গবেষণায় প্রতি হাজারে ২৫ শিশু হৃদরোগে আক্রান্ত হচ্ছে বলে দাবি করা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, অসংক্রামক ব্যাধির মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্তের হার বেড়ে চলছে। বর্তমানে শিশু হৃদরোগীর সংখ্যাও উদ্বেগজনক। সরকারি ব্যবস্থাপনায় দেশের সব মেডিকেল কলেজে কার্ডিওলজি বিভাগ ও পৃথক শিশু কার্ডিওলজি ইউনিট খোলার বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা চলছে।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।