অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ কানাকানি কিংবা ফিসফাস আলাপ আমাদের হৃদয়কেও তিক্ত করে। মনকেও বিষিয়ে তোলে। স্বয়ং পোপ ফ্রান্সিসও  এ বিষয়ে সাবধান করেছেন। কিন্তু নতুন এক গবেষণার ফলাফলে দেখা গেছে, কানাঘুষা মোটেও খারাপ কিছু নয়; বরং আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে এমন গল্প-গুজব অনেক সাহায্য করে। কাউকে নিয়ে কানাকানি করার সময় স্বাভাবিকভাবেই নিজের সঙ্গে তুলনা চলে আসে। আর তখনই নিজের চরিত্রের ভালো-মন্দ দিকগুলোও আমরা গুরুত্ব দিয়ে ভেবে দেখি।

নেদারল্যান্ডসের গবেষকরা দেখিয়েছেন, কারও সম্পর্কে ইতিবাচক বা নেতিবাচক কথাবার্তা শুনলে ব্যক্তির আত্মপ্রতিচ্ছবি ও আত্মমূল্যায়ন করতে সুবিধা হয়। তবে অবশ্যই সেগুলোকে সমালোচনামূলক দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখতে হবে। এর প্রভাবের দিকটি মাথায় রেখেই আগেভাগে  সাবধান করেছেন তারা। ইউনিভার্সিটি অব গ্রোনিনজেনের অ্যালিনা মার্টিনেশু বলেন, নেতিবাচক কথাবার্তা শোনার পর মেয়েদের আত্মরক্ষার মানসিকতা আরও জোরালো হয়। কারণ, ওই ব্যক্তি যে কোনো দিন তার সম্পর্কেও তেমনটা বলতে পারে, এটা ভেবে সতর্ক হওয়ার তাগিদ পায়। পুরুষের অভিজ্ঞতা অবশ্য এ ক্ষেত্রে ভিন্ন। তারা ইতিবাচক কানাঘুষা শুনলেই আতঙ্কিত হয়। সম্ভবত প্রতিদ্বন্দ্বীর সঙ্গে সামাজিকভাবে তুলনার ভয়েই তারা ভীত। প্রফেসর মার্টিনেশুর দাবি, গুজবে শোনা কথাগুলো অবচেতনভাবেই একজনকে প্রভাবিত করে। ফলে সামাজিক কারণেই নিজের আচরণ থেকে সেগুলো বাদ দিতে চায়। তাই তো গুজব এড়িয়ে না চলে ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিতে গ্রহণের আহ্বান জানান তিনি। পার্সোনালিটি অ্যান্ড সোশ্যাল সাইকোলজি বুলেটিন নামে জার্নালে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, কানাঘুষায় এমন সব তথ্য পাওয়া যায়, যেগুলো ব্যক্তির চরিত্রকে আরও উন্নত করতে সহায়ক।

সুত্রঃ ডেইলি মেইল 

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।