অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ ঝিঙা  বৈজ্ঞানিক নাম : Luffa acutangula এটি  গ্রীষ্মকালীন সবজি। ঝিঙায় সব পুষ্টি উপাদানই সামান্য পরিমাণ আছে। তবে ভিটামিন ‘এ’ আছে প্রচুর। ক্যালসিয়ামের পরিমাণ শসা, করলা, মুলা ও আলুর চেয়ে সামান্য বেশি এবং বাকি সব শাকসবজির চেয়ে কম। আয়রনের পরিমাণ চিচিঙ্গা, টমেটো, শালগম ও ওলকপির চেয়ে সামান্য বেশি। ভিটামিন ‘এ’ এর পরিমাণ পালংশাক, কচুশাক, লালশাপ, পুইশাক, কলমিশাক, গাজর, ডাটাশাক, মুলাশাক, মিষ্টি কুমড়া, বেগুন, ঢেঁড়স ও পটল ছাড়া বাকি সব শাক-সবজির চেয়ে বেশি। ঝিঙা কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে। প্রতি ১০০ গ্রাম আহারোপযোগী ঝিঙায় জলীয় অংশ ৯৩ গ্রাম, আমিষ ১.৮ গ্রাম, শর্করা ৪.৩ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ১৬ মি. গ্রাম, আয়রন ০.৫ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ৬৭০ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন সি ৩ মিলিগ্রাম ও খাদ্যশক্তি ৩০ কিলোক্যালরি।

 

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।