কৃষিবিদ ফরহাদ আহাম্মেদ:  সোয়াইন ফ্লু’র প্রতিরোধক টিকা ও চিকিৎসা না থাকায় প্রচুর লোক আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে।  রসুনে বিদ্যমান এলিসিন নামক পুষ্টি বা রাসায়নিক পদার্থ সোয়াইন ফ্লু’র ভাইরাস প্রতিরোধ করে। টাইমস অনলাইন ও সায়েন্স জার্নাল থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয় রসুন বেটে বা চিবিয়ে খেলে এলিসিন নামক সুপার নিউটিয়েন্ট তৈরি হয়। এলিসিন সোয়াইন ফ্লুসহ বিভিন্ন ভাইরাসের আক্রমন প্রতিরোধ করে।এই এলিসিনের জন্যই কাঁচা রসুন ঝাঁঝালো হয়।গবেষণায় দেখা গেছে দৈনিক একটি রসুনের অর্ধেক থেকে এক কোয়া খেলে কোলেস্টেরল কমে। ধমনীর ভেতর রক্তের জমাট বাঁধা ঠেকাতে রসুন সাহায্য করে। রসুন এন্টিবায়োটিক ও এন্টিসেপটিক হিসেবে কাজ করে এবংপ্রদাহ ও সংক্রামক ব্যাধিরোধক। হিস্টিরিয়া,সায়াটিকা ওহৃদপিন্ডের জন্য রসুন উপকারী। রসুনে এলাইস সালফাইড তীব্র বিষনাশক। ইহা শরীরের ফুসফুস,কিডনি এবং যকৃত থেকে নির্গত ক্ষরোগের জীবানু বৃদ্ধি রোধ করে। নিউমোনিয়া, ব্রংকাইটিস,ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রভৃতি রোগের জন্যে রসুন মহা ওষুধ। পেটফাঁপার জন্য দু তিন কোয়া রসুন লবণ দিয়ে খেলে পেট ফাঁপা ভাল হয়।রসুনের ২০-২৫ ফোটা রস খেলে কৃমি মরে যায়।

রসুনের রসের সাথে তেল মিশিয়ে ব্যাথা স্থানে দিলে ব্যথা ভালো হয়।ত্বকের চুলকানী ও একজিমার জন্য উপকারী।ওষুধের জনক হিপোক্রিটস বলেছেন রসুন মানুষের জীবনী শক্তিকে দীর্ঘায়িত করে। রসুন হজমশক্তি বৃদ্ধি করে।রসুনের রস মাথায় দিয়ে চুল পড়া ও খুসকি উঠা বন্ধ হয়। কাটা ঘা,পোড়া ঘায়ে এন্টিবায়োটিক হিসেবে কাজ করে। হাঁপানি রোগে রসুনের সিরাপ উপকারী।রসুন দুধের সাথে খেলে অস্থিক্ষ রোধ করে।রসুনের রস দেহের ভিতর ও বাহিরে ক্ষতিকর জীবানু নাশ করে। বাতের ব্যাথায় রসুন উপকারী।রসুন যৌবন শক্তি বৃদ্ধি করে।র্সদি-কাশিতে রসুন উপকারী। রসুন রক্ত প্রবাহকে উন্নত করে। রসুন দেহের ধূষিত পদার্থ পরিষ্কার করে। রসুন দেহের ওজন ও শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে প্রতিদিন ১ কোয়া রসুন দুধের সাথে খেলে যক্ষা হয় না। উল্লেখ্য,গর্ভবতী মহিলারা রসুন খেলে সমস্যা হতে পারে। রসুন মস্তিষ্ক,হৃদপিন্ড ও জননগ্রন্হিকে উদ্দীপ্ত করে।

খাদ্যোপযোগী প্রতি ১০০ গ্রাম রসুনে পুষ্টি উপাদান থাকে জলীয় অংশ ৬২ গ্রাম,খনিজ পদার্থ ১ গ্রাম, আঁশ ০.৮ গ্রাম, আমিষ ৬.৩ গ্রাম,চর্বি ০.১ গ্রাম,র্শকরা ২৯.৮ গ্রাম,ক্যালসিয়াম ৩০ মিলিগ্রাম,আয়রণ ১.৩ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন নেই, ভিটামিন বি১ ০.০৬ মিলিগ্রাম,ভিটামিন বি২ ০.২৩ মিলিগ্রাম,ভিটামিন সি ১৩ মিলিগ্রাম, এবং ক্যালরি ১৪৫ কিলোক্যালোরি।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।