অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে বিশ্ব বড় ধরনের পানি সংকটে পড়বে। এতে গ্রীষ্মমন্ডলীয় দেশগুলো বিপর্যয়ের মুখে পড়তে পারে। শুক্রবার জাতিসংঘ এমন হুঁশিয়ারি বার্তা দিয়েছে। এ সংক্রান্ত বার্ষিক প্রতিবেদনে জাতিসংঘ জানায়, বর্তমানে পানি অপব্যবহার একটি বড় সমস্যা। এই প্রবণতা চলতে থাকলে ২০৩০ সাল নাগাদ বিশ্বে ৪০ শতাংশ পানি ঘাটতি দেখা দিতে পারে। জাতিসংঘের বার্ষিক পানি উন্নয়ন বিষয়ক প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশ্বের চাহিদা পূরণে পর্যাপ্ত পানি থাকলেও ব্যবহার, ব্যবস্থাপনা ও ভাগাভাগির ক্ষেত্রে নাটকীয় পরিবর্তন আসছে না।

জাতিসংঘ পানি সংস্থা ও বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা (ডব্লিউএমও)-এর প্রধান মাইকেল জারায়ুদ বলেন, পানির টেকসই ব্যবহার নিশ্চিত করতে জরুরি ভিত্তিতে পানির পরিমাপ, পর্যবেক্ষণ ও পদক্ষেপের বাস্তবায়ন প্রয়োজন। প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, জনসংখ্যার ক্রমাগত বৃদ্ধি আসন্ন পানি সংকটের ক্ষেত্রে অন্যতম প্রধান কারণ। পৃথিবীতে বর্তমানে প্রায় ৭.৩ বিলিয়ন জনসংখ্যা রয়েছে। পৃথিবীতে প্রতিবছর প্রায় ৮০ মিলিয়ন লোক বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ হারে জনসংখ্যা বৃদ্ধি পেলে ২০৫০ সাল নাগাদ পৃথিবীতে জনসংখ্যা বেড়ে ৯.১ বিলিয়নে দাঁড়াবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অতিরিক্ত এই জনসংখ্যার খাবার যোগাতে বিশ্বে কৃষি উৎপাদন প্রায় ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করতে হবে। কৃষিখাতে বর্তমান মোট পানি প্রায় ৭০ শতাংশ ব্যয় হচ্ছে। ফলে ২০৫০ সাল নাগাদ বিশ্বে পানির চাহিদা ৫৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।