ডেস্ক রিপোর্টঃ  শরীরের ক্লান্তি ও অবসাদ দূর করতে চায়ের বিকল্প নেই। চা দিয়ে শরীর-মনকে ফ্রেশ করাটা একটা সাধারণ বিষয় । তবে এগুলো ছাড়া ও চায়ে অনেক স্বাস্থ্যগত উপকার রয়েছে। সম্প্রতি একটি অস্ট্রোলিয়ান গবেষকরা চায়ের দশটি উপকারের তথ্য বের করেছেন।গবেষণায় দেখা গেছে যে, গ্রিন-টি’তে ক্যান্সার প্রতিরোধক উপাদান রয়েছে। চা পানের কারণে মুত্রথলি, পাকস্থলির ক্যান্সারসহ সব রকম ক্যান্সার ঝুকি অনেক কমে যায়। গ্রিন-টি পানের দ্বারা ধমনী ও অপঘাতজানিত রোগের শষ্কা কমে আসে । সম্প্রতি একটি জাপানি গবেষকরা এ তথ্য জনিয়েছেন বলা হয়েছে, যত বেশি গ্রিন-টি পান করবেন, ততই এসব রোগের ঝুঁকি কমে আসবে। গ্রিন-টি পানের কারণে উচ্চ রক্তচাপ ও স্ট্ট্রোকের ঝুকি অনেক কমে যায়। ব্ল্যাক-টি (কালো চা) পানের কারণে অবসাদ দূর হয়। শরীরে প্রফুল্লতা আসে। ২০১০ সালে ইউনিভার্সিটি কলেজ লন্ডনের একটি গবেষণায় দেখা গেছে, যে কোনও ধরনের ড্রিষ্কস থেকে ব্ল্যাক টি অবসাদ দূর অনেক করতে  বেশি উপকারী। গ্রিন টি পানের কারণে স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে যায়। হার্বাল চা পান করলে সব রকম বিপকীয় রোগের আশষ্কা অনেকাংশে কমে যায়।  হার্বাল ও মধুমিশ্রিত চা পানের দ্বারা ত্বকের ক্যান্সার কমে। গবেষণায় বলে হয়, বিষয়টি মানব চিকিৎসায় ভবিষ্যতে বিপ্লব নিয়ে আসবে। হার্বাল চা পাখির উপর প্রয়োগ করে দেখা গেছে, তাদের ডিম উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ছে । এত করে ভবিষ্যতে এটা মানুষের প্রজনন ক্ষমতার কাজে লাগনো যাবে বলে আশা করা হয় গবেষনা প্রতিবেদনের ।  হোয়াইট টি (সাদা চা) অক্সিজেনজনিত চাপ কমাতে অনেক উপকারী হিসাবে প্রমাণিত হয়েছে। গবেষণা প্রতিবেদনে আশা করা হয়, হার্বাল চা (গ্রিন, ব্ল্যাক, রেড) পান করলে পুরুষের প্রজনন ক্ষমতা বাড়ে। গবেষণায় বলা হয়, সবধরনের চা-ই মানুষের জন্য উপকারী এবং এর উপকারের বিষয়টি বহুমাত্রিক।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।