ডা. শামস মোহাম্মদ নোমান:  সুস্থ সুন্দর চোখ কার না কাম্য কিন্তু এই সুস্থ সুন্দর চোখে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কিছু পরিবর্তন হয়। এই পরিবর্তনের ফলে চোখের সুস্থতা হুমকির মুখে পড়ে।

চালশে রোগ:
বয়স চল্লিশের পর কাছে কোনো কিছু দেখতে অসুবিধা হওয়াকে চালশে রোগ বলা হয়। খবরের কাগজ পড়ার সময় অথবা সুই সুতার কাজ করার সময় সমস্যাটি ধরা পড়ে। কাছের জিনিস ঝাঁপসা দেখা, মাথাব্যথা করা এই রোগের লক্ষন। বয়সজনিত কারনে চোখের লেন্সের পাওয়ার কমে যাওয়ার করনে এই রোগ হয়। ডাক্তারের পরামর্শে চশমা ব্যবহারের মাধ্যমে এই রোগের চিকিৎসা করা হয়।
ছানিরোগ:
বয়স জনিত কারনে চোখের স্বচ্ছ লেন্স অস্বচ্ছ হয়ে দৃষ্টি কমে যাওয়াকে ছানিরোগ বলা হয়। এতে সাধারনত আগে পরে দুই চোখই আক্রান্ত হয়। দূরে এবং কাছে ঝাঁপসা দেখা, আলো সহ্য করতে না পারা, আলোর চতুর্দিকে রঙিন দেখা এই রোগের লক্ষন। কোনো ওষুধে এই রোগের চিকিৎসা করা যায় না। একমাত্র অপারেশন করে ছানি অপসারনের মাধ্যমে এই রোগের চিকিৎসা সম্ভব। সবচেয়ে আশার কথা ছানি অপসারন করে কৃত্রিম লেন্স সংযোজনের মাধ্যমে প্রায় স্বাভাবিক দৃষ্টি ফিরে পাওয়া সম্ভব।
ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি:
অনিয়ন্ত্রিত এবং অনেক দিনের ডায়েবেটিক রোগের কারনে বয়স্কদের এই রোগ হয়। চোখের রেটিনার রক্তনালীতে পরিবর্তনের কারনে রেটিনায় পানি জমে যাওয়া এমনকি রক্তপাত হতে পারে। চোখের ভেতরে ইনজেকশন প্রয়োগ, লেজার এবং অপারেশনের মাধ্যমে এই রোগের চিকিৎসা সম্ভব। ডায়াবেটিস রোগ নিয়ন্ত্রন এবং নিয়মিত চোখ পরীক্ষার মাধ্যমে এই রোগ প্রতিরোধ সম্ভব।
চোখ দিয়ে পানি পড়া:
বয়সজনিত কারনে নাকের গোড়ার দুই পাশে অবস্থিত নেত্রনালী সরু হয়ে এই রোগ হয়। চোখের পানি সরু নেত্রনালী দিয়ে না সরতে পেরে চোখের কোনায় পানি জমা হয়ে থাকে এবং অনবরত পানি পড়তে থাকে। মাঝে মাঝে নেত্রনালী ফুলে গিয়ে ব্যথা বেদনা হতে পরি। নেত্রনালীর অপারেশনের মাধ্যমে এই রোগের চিকিৎসা সম্ভব।
করনীয়:
নিয়মিত চক্ষু ডাক্তারের কাছে চোখ পরীক্ষা করা প্রয়োজন। প্রতি ৫ বছর পর পর চোখের পাওয়ার চেক করা প্রয়োজন।ডায়েবেটিস ও রক্তচাপ অবশ্যই নিয়ন্ত্রন করতে হবে। পরিমিত পুষ্টিকর খাদ্য খেয়ে চোখের বয়সজনিত রোগ প্রতিরোধ সম্ভব।নিয়মিত পরিষ্কার পনি দিয়ে চোখ পরিষ্কার করতে হবে। হঠাৎ করে চোখে কম দেখলে দেড়ী না করে ডাক্তারের শরনাপন্ন হওয়া বাঞ্ছনীয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের অগ্রগতির কারনে বেশির ভাগ বয়সজনিত চোখের রোগের সুচিকিৎসা সম্ভব। চোখের রোগ সম্পর্কে সচেতনতা এবং নিয়মিত চোখ পরীক্ষার মাধ্যমে অনেক রোগ প্রতিরোধ ও সম্ভব।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।