আত্মহত্যা! নাকি কেবল দুর্ঘটনা? হাসাপাতালে ভোররাতে রক্তাক্ত কব্জি নিয়ে ভর্তি হলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়৷ ওয়াই গ্লাসের কাচ কব্জিতে ঢুকে গিয়ে হাতের অবস্থা শোচনীয়৷ কিন্তু যখনই এই খবর শহুরে হাওয়ায় ছড়িয়ে পড়ল তখনই শুরু হল জল্পনা আর কল্পনা৷ স্বস্তিকা নাকি কিছুদিন ধরে মানসিক অবসাদে ভুগছেন৷

টলিউডে কান পাতলে শোনা যাচ্ছে একদিকে কেরিয়ার, তো অন্যদিকে পারিবারিক, বিশেষ করে ব্যক্তিগত সমস্যায় জর্জড়িত হয়েই স্বস্তিকার এরকম পদক্ষেপ নেওয়া৷ তবে সত্য-মিথ্যার ভিতের না ঢুকে, যে খবর আপাতত বাইরে এসেছে তা হল, এক পার্টিতে ওয়াইনের গ্লাস ভেঙেই আহত হন স্বস্তিকা৷ মানসিক অবসাদ স্বস্তিকার থাকলেও, আত্মহত্যা হয়ত নয়৷
তবে রাত কাটতেই অন্য খবর চমকে দিল গুঞ্জনকে৷ জানা গেল, স্বস্তিকার হাত কেটে যাওয়া এবং পরিচালক সুমন মুখোপাধ্যায়ের গ্রেফতারের ঘটনা যেন এক সূত্রেই গাঁথা৷ আহত হলেন স্বস্তিকা অন্যদিকে হোটেলের লোকজনদের মারধর করার অভিযোগে গ্রেফতার হলেন এই পরিচালক৷ শুরু হল নতুন গুঞ্জন৷ তাহলে কি এবার স্বস্তিকা-সুমন সর্ম্পক?
একটু পিছনে ফিরে তাকানো যাক৷ বিবাহ বিচ্ছেদের পরে টলিউডে পা দিয়ে বহু সর্ম্পকের সঙ্গেই যুক্ত হয়ে পড়েন স্বস্তিকা৷ প্রথমে এ ব্যাপারে অভিনেতাদেরই বেশি পছন্দ ছিল স্বস্তিকার৷ কেরিয়ারের প্রায় শুরুর দিকে অভিনেতা জিতের সঙ্গে শুরু হয়েছিল প্রেমালাপ৷ তবে সে প্রেম টেকেনি বেশি দিন৷স্বস্তিকা
তারপরেই স্বস্তিকার জীবনে এন্ট্রি নিল পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়৷ প্রায় তিন বছর ধরে সর্ম্পক চলার পর সম্পর্কচ্ছেদ৷ পরম-স্বস্তিকার সর্ম্পক নিয়ে জলঘোলা হয়েছিল প্রচুর৷ স্বস্তিকার স্বামী প্রমিত সেন পরমব্রতের নামে আদালতে মামলাও করেছেন নানা কারণে৷
এমনকি শোনা গিয়েছিল টাকা-পয়সা নিয়েই প্রমিতের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়েন স্বস্তিকা ও প্রমিত৷ সেই প্রেমের পাঠ শেষ হতে না হতেই পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে সর্ম্পক নিয়ে নানা কথাও চাউর হতে শুরু করে টলিপাড়া জুড়ে৷ এর মধ্যেই সৃজিতের নানা ছবিতে অভিনয় করতে দেখা যায় স্বস্তিকাকে৷ নিন্দুকেরা দুইয়ে দুইয়ে চার করে ফেলেন গোটা স্বস্তিকা-সৃজিত প্রেম কাণ্ড৷ কিন্তু সে প্রেমও টেকে না বেশিদিন৷ এর মধ্যেই ধীরে ধীরে স্বস্তিকার কেরিয়ারে কিছুটা হলেও দৃঢ়তা আসতে শুরু করে৷ ঝুলিতে আসা বেশ কিছু ভাল ছবির অফার৷ কিন্তু ব্যক্তিগত দিকটা পড়ে থাকে ফাঁকা৷
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘শেষের কবিতা’ নিয়ে ছবি তৈরির করার সময়ই পরিচালক সুমন মুখোপাধ্যায়ের কাছে আসেন স্বস্তিকা৷ এই ছবিতে তাঁকে দেখা যাবে কেটি-র চরিত্রে৷ আর তা থেকেই জন্ম নেয়, নতুন সর্ম্পক৷ নিউ ইর্য়ক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রশংসিত হয় ‘শেষের কবিতা’৷
সেই খুশির পার্টিতেই এসেই ওয়াইন গ্লাস ভেঙে আহত হওয়ার কাণ্ড৷ স্বস্তিকার দিদি অজপার কথা অনুযায়ী, ‘পার্টিতে হঠাৎই স্বস্তিকা পড়ে যায়৷ ওঁর হাতে ওয়াইন গ্লাস ছিল৷ আর তা থেকেই এই দূর্ঘটনা৷’ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও এই ব্যাপারে মুখে কুলুপ এঁটেছেন৷
তবে হোটেল কর্তৃপক্ষের কথা অনুযায়ী, সুমন মুখোপাধ্যায় মদ্যপ অবস্থায় মারধর করেন হোটেলের কর্মচারীদের৷ আর স্বস্তিকা সে ঘটনাতেই আহত হন৷ তবে সুমন-স্বস্তিকার বচসার কথা কেউ সোজাসাপটা বলতে না চাইলেও, ঘটনার ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে সেই রকমই৷

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।