লোকসভা নির্বাচনের উতল হাওয়া অবশেষে বেশ কিছু তারার পর ছুঁয়ে গেল প্রিয়ঙ্কা চোপড়াকেও। সামান্য দেরিটা যে হল, সে তো নায়িকার দ্বিধার জন্যই। কী করবেন, এটা বুঝতে না পেরেই যে আগে কন্যে ফিরিয়ে দিয়েছিলেন একটি রাজনৈতিক দলের আহ্বান। তবে ভুলটা বুঝতে পারার পর আর দেরি-টেরি নয়! পুরোদস্তুর রাজনীতির ময়দানে নেমেই পড়লেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া।

সম্প্রতি একটি রাজনৈতিক দল নির্বাচনে তাঁদের আসন পাক্কা করার জন্য সটান দরবার করতে চলে গিয়েছিলেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়ার কাছে। পিগি তাঁদের হয়ে ক্যাম্পেন করবেন; তাঁরাও নিশ্চয়ই থাকবেন বিপদে-আপদে পিতৃহীনা মেয়েটার পাশে! এদিকে, নায়িকা যে ব্যস্ত রয়েছেন দু’-দুটো নামজাদা ছবি নিয়ে। রাজনীতিতে নামলে সেগুলোর কী হবে? আর যদি রাজনীতিতে ভাগ্য তেমন প্রসন্ন না হয়? সে ব্যাপারটাও তো ভেবে দেখতে হবে।প্রিয়াঙ্কা

ভেবে দেখেই সাফ সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন মেয়ে মিডিয়াকে, ‘আমি অভিনেত্রী, সিনেমাটা নিয়েই থাকতে চাই। রাজনীতি আমার জন্য নয়। আরে, সব কাজ কি সবাইকে দিয়ে হয়’? কিন্তু যা দেখা যাচ্ছে, দলটিকে ফিরিয়ে দিয়ে মেয়ে আফশোসে ভুগলেন ভালই। দিন কতক ভাবলেন, তারপর ছুটে গিয়ে ডাইভ খেয়ে পড়লেন মধুর ভান্ডারকরের ওপরে! ‘আমার জন্য একটু অপেক্ষা করো, মধুর! খুব বেশি নয়, সামান্যই’! কেননা, তারপরেই তো রাজনীতির জগতে পা ফেলবেন প্রিয়ঙ্কা মধুরের হাত ধরে।

মধুর ভান্ডারকরও কি তাহলে এবার আসর জমাতে চললেন রাজনীতিতে? একদমই তাই! তবে উনি যেভাবে করে থাকেন আর কী- ছবির পর্দায়! সেই ছবিতেই রাজনীতির জগৎটা শক্ত মুঠোয় ধরে রাখবেন ‘ম্যাডামজি’ প্রিয়ঙ্কা। কানাঘুঁষো বলছে, এই ম্যাডামজি চরিত্রটার সঙ্গে সামান্য মিল থাকতে পারে দক্ষিণের বিখ্যাত মন্ত্রী জয়ললিতার। কেননা, ম্যাডামজিও রাজনীতির দুনিয়ায় জয়ললিতার মতোই পা রাখবেন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সূত্র ধরে।

তবে হ্যাঁ, ‘ম্যাডামজি’ ছবির শ্যুটিং কিন্তু এখনই শুরু হচ্ছে না। শুধু এটুকু পাকাপোক্ত যে, প্রিয়ঙ্কাই হবেন ম্যাডামজি। আসলে মেয়ের জন্যই তো ছবির শ্যুটিং পিছিয়েছে। আপাতত মেরি কম-এর বায়োপিক আর জোয়া আখতারের ‘দিল ধড়কনে দো’ ছবির কাজ দুটো মিটিয়ে নিতে চান মেয়ে। ‘প্রিয়ঙ্কার ছবিটার কনসেপ্ট আর স্ক্রিপ্ট খুবই পছন্দ হয়েছে। ও এত এক্সাইটেড যে এই চরিত্রটা আর কাউকে দিতে বারণ করে দিয়েছে। ও পুরো শিডিউলটা দিয়ে ম্যাডামজি করতে চায়। ওই সময়ে অন্য কোনও ছবিতে ও কাজ করবে না বলেছে। আমরাও সেই জন্য ছবিটার শ্যুটিং পিছিয়ে দিয়েছি’, বলছেন মধুর ভান্ডারকরের শ্যুটিং দলের এক বিশ্বস্ত সূত্র। তার জন্য মাস সাতেক হয়তো লাগবে খুব বেশি হলে।

আর এই নায়িকার জন্য মধুরের থেমে থাকা দেখেই থ’ হয়ে গিয়েছে বলিউড। এরকম তো মধুর কখনও করেন না! এর আগে ‘হিরোইন’ ছবির জন্যও তো কম হ্যাপা পোহাতে হল না তাঁকে- সেখানেও ঐশ্বর্যা রাই বচ্চন মুখ ফিরিয়ে নিলে চটজলদি করিনা কপূর খানকে দিয়ে কাজ চালিয়ে নিয়েছিলেন তিনি। তবে এবার কী হল? তাহলে কি প্রিয়ঙ্কা ছাড়া বলিউডে চরিত্রটা করার সাধ্যি কারও নেই? নিন্দুকেরা অবশ্য বলছেন, সাত তাড়াতাড়ি কাজ সারতে গিয়েই ফ্লপ খেয়েছিল ‘হিরোইন’! সেই জন্যই এবার আর ঝুঁকি নিচ্ছেন না মধুর।

তা বলে, এই ক’টা মাস একেবারে ফাঁকা হাতে বসেও থাকবেন না পরিচালক। একেবারে আনকোরা মুখ নিয়ে স্পেন আর ভারতের লোকেশনে বানিয়ে ফেলবেন নতুন ছবি ‘ক্যালেন্ডার গার্ল’। তা, তাড়াহুড়োয় এই ছবিটার আবার ভরাডুবি হবে না তো? তাছাড়া, সবাই প্রথমে জানতেন, ‘ক্যালেন্ডার গার্ল’-এর নায়িকা হবেন দীপিকা পাড়ুকোন। এবার আনকোরা মুখ নিলে সেই প্রত্যাশার চাপ সামলানো যাবে তো?

‘ক্যালেন্ডার গার্লের জন্য একেবারে নতুন মুখই চাই। সেই জন্যই দীপিকাকে নিয়ে কাজ করছেন না মধুর। তাছাড়া, এই ছবিটা বানাতে খুব বেশি হলে ৫৫-৫৬ দিন লাগবে। তার পরেই প্রিয়ঙ্কাকে নিয়ে ম্যাডামজির শ্যুটিং শুরু করবেন মধুর’, দাবি বিশ্বস্ত সূত্রের।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।