অনলাইন ইওর হেল্‌থ ডেস্কঃ আমাদের প্রতিদিনের ঝাল জাতীয় তরকারিতে পেয়াজের উপস্থিতি প্রায় বাধ্যতামূলক। বাঙ্গালি খাবারের কোনো তরকারিতে পেয়াজ থাকবে না এটা হতেই পারে না। স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি স্বাস্থ্যের জন্যও পেঁয়াজের গুরুত্ব অপরিসীম। তবে স্বাস্থ্য রক্ষায় পেঁয়াজের অনেক গুণাগুণ থাকলেও তার বেশিরভাগই আমরা ভালো করে জানিনা। পেঁয়াজের কিছু গুণাগুণ, ঠাণ্ডা লেগে মাথা ব্যথা করছে? ১ চামচ পেঁয়াজের রসের সাথে দ্বিগুণ পরিমাণ পানি মিশিয়ে খেয়ে ফেলুন। দেখবেন ব্যথা কমে গেছে। শরিরে জ্বর জ্বর ভাব পেঁয়াজের রস নাক দিয়ে টেনে নিলে শরিরের জ্বর জ্বর ভাব কেটে যাবে। পেঁয়াজ বাত ব্যথার রোগীদের ব্যথা কম থাকবে। এছাড়া বার বার বমি হলে চার-পাঁচ ফোঁটা পেঁয়াজের রস পানিতে মিশিয়ে খেলে বমি বন্ধ হয়ে যাবে। শরীরে থাকা অতিরিক্ত ইউরিক এসিডও বের করে দেয় পেঁয়াজ। যদি হেঁচকি উঠতে থাকে তবে পেঁয়াজের রস মিশানো পানি খান, হেঁচকি বন্ধ হয়ে যাবে।

চুলে খুশকির সমস্যা থাকলে কিংবা গোড়া আলগা হয়ে চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যার ক্ষেত্রেও পেঁয়াজ অনেক কার্যকরি। চুল ধোওয়ার আগে আধঘন্টা পেঁয়াজের রস মাথায় মেখে রাখুন, চুলের গোড়া শক্ত হওয়ার পাশাপাশি নতুন চুল গজাতেও কাজ করবে এ পদ্ধতি। কাঁচা পেঁয়াজ কোলেস্টেরোল বা এইচডিএল উৎপাদনে সহায়তা করে আপনার হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। পেঁয়াজে রয়েছে ফাইটোকেমিক্যালস, যা শরীরে ভিটামিন ‘সি’ এর কার্যকারিতাকে বাড়ায়। এর ফলে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। পেঁয়াজে ক্রোমিয়ামের উপস্থিতি রয়েছে। এটা রক্তে সুগারের পরিমাণকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে। ক্যান্সার প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে পেঁয়াজ। পেঁয়াজ গ্যাস্ট্রিক আলসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমায়। পিয়াজ হার্টের সমস্যার পাশাপাশি ব্রেন স্ট্রোক প্রতিরোধেও ভূমিকা অসামান্য। একটি বড় মাপের পেঁয়াজে ৮৬.৮ শতাংশ পানি, ১.২ শতাংশ প্রোটিন, ১১.৬ শতাংশ শর্করা জাতীয় পদার্থ, ০.১৮ শতাংশ ক্যালসিয়াম, ০.০৪ শতাংশ ফসফরাস ও ০.৭ শতাংশ লোহা থাকে। এছাড়া পেঁয়াজে থাকে ভিটামিন এ, বি ও সি।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।