হাল ফ্যাশানের যুগে কোমল পানীয় আমাদের জীবনের অঙ্গ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ জলের বদলে কোল্ড ড্রিংক্স খাওয়ার অভ্যেস রয়েছে কম বেশি সকলেরই৷ কিন্তু এই ধরনের পানীয়গুলি শরীরে প্রবেশ করে বিভিন্ন ভাবে শরীরকে ক্ষতিগ্রস্থ করতে তুলতে পারে কয়েক মিনিটের মধ্যে৷sodadrinks

প্রথম ১০ মিনিট পর, এক গ্লাস নরম পানীয়ে প্রায় ১০ চামচ চিনি থাকে যেটা অর্গানিজমে মারাত্মক প্রভাব ফেলে। তবে শুধু মাত্র ফসফরিক অ্যাসিডের কারণে বমির উদ্রেক হয় না।
২০ মিনিট পর, রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা বেড়ে যায়। লিভারে জমাকৃত শর্করা ফ্যাটে পরিণত হয়।
৪০ মিনিট পর, রক্তে চিনির পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় রক্ত চাপও বেড়ে যায়।
৪৫ মিনিট পর- শরীরে ডোপামিন হরমোনের পরিমাণ বাড়তে থাকে যা মস্তিস্কে উত্তেজনার সৃষ্টি করে। হিরোইনও শরীরে একই প্রক্রিয়ায় কাজ করে।
১ ঘণ্টা পর, ফসফরিক অ্যাসিড শরীরের ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ও জিংকের কার্জকারিতা বাধাগ্রস্থ করে। যেটা পরবর্তীতে মেটাবোলিজম এর উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।
১ ঘণ্টার বেশি সময় পর, অর্গানিজম থেকে পুরোপুরি ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম ও জিংক বিলীন হয়ে যায় যেগুলো আমাদের হাড় গঠনের প্রধান উপাদান। নরম পানীয়ে ব্যবহৃত সমস্ত জল প্রস্রাবের মাধ্যমে আমাদের শরীর থেকে বের হয়ে যায়।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Tags:

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।