appleগুণগত মান আর অভিনব সব ডিজাইনের কারণেই টেক জায়ান্ট অ্যাপল’র বিভিন্ন প্রযুক্তি পণ্যকে বিশ্বের সেরা মনে করা হয়। ম্যাকিন্টোশ থেকে শুরু করে ম্যাকবুক, ম্যাকবুক প্রো, আইপড, আইফোন, আইপ্যাড এবং অ্যাপল’র অন্যান্য সব পণ্যগুলোও আস্থার প্রতীক হিসেবেই বিবেচিত হয়ে আসছে বিশ্বজুড়ে। এসব পণ্যের ব্যবহারকারীরাও পূর্ণ সন্তুষ্টিই জানিয়ে আসছিল এতদিন। তবে এতদিনে এসে বোধহয় অ্যাপল পণ্যগুলোর প্রতি গ্রাহকদের মোহ কাটতে শুরু করেছে। যে কারণে গ্রাহক সন্তুষ্টিতে অ্যাপল খানিকটা পিছিয়ে পড়ছে প্রতিদ্বন্দ্বীদের তুলনায়। ফরেস্টার রিসার্চের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় এমন তথ্যই প্রকাশ পেয়েছে। বিভিন্ন প্রযুক্তি পণ্যের ব্যবহার কতটা সহজ এবং কতটা গ্রাহকবান্ধব, এমন বিষয়ের উপর পরিচালিত গবেষণায় অ্যাপল’র চাইতে খানিকটা এগিয়ে রয়েছে সনি, মাইক্রোসফট এবং স্যামসাং। যুক্তরাষ্ট্রের সাড়ে সাত হাজার ভোক্তাদের জরিপে এসব ব্র্যান্ডের সূচকে অ্যাপল পিছিয়ে পড়েছে। ফরেস্টার তিন বছর যাবত্ এই গবেষণাটি পরিচালনা করে আসছে। গত দুই বছরের গবেষণায় সকলকে পেছনে ফেলে শীর্ষেই অবস্থান সুসংহত রেখেছিল অ্যাপল। তবে এবারে এসে আর সেই শীর্ষস্থানটি ধরে রাখতে পারেনি তারা। ভোক্তাদের মতামত অনুযায়ী সূচকে সনি, মাইক্রোসফট, স্যামসাং এবং অ্যাপল সকলেই ‘ভালো’ র্যাংকিং পেয়েছে। তবে রেটিং পয়েন্টে অ্যাপল পিছিয়ে পড়েছে বাকি তিন প্রতিষ্ঠানের তুলনায়। আর এদের সকলকে পেছনে ফেলে সবচাইতে সন্তোষজনক ব্র্যান্ডের স্বীকৃতি পেয়েছে অ্যামাজন। তারাই একমাত্রা ব্র্যান্ড হিসেবে সূচকে পূর্ণ ৮ পয়েন্ট লাভ করেছে, যা অন্য কেউ পারেনি। গ্রাহক সন্তুষ্টিতে অ্যাপল’র পিছিয়ে পড়াকে অ্যাপল’র জন্য বড় ধরনের সতর্কবাণী হিসেবেই মনে করছেন প্রযুক্তি বিশ্লেষকরা। কয়েক সপ্তাহ আগেই ফরেস্টারের আরেক গবেষণাতেও অ্যাপল’র চাইতে বিশ্বস্ততায় মাইক্রোসফট এগিয়ে রয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের গ্রাহকরা। ওই গবেষণা সম্পর্কে ইউটিএ ব্র্যান্ড স্টুডিও’র প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ল্যারি ভিনসেন্ট জানিয়েছিলেন, ‘সারাবিশ্বেই মাইক্রোসফটের পণ্য ব্যবহার করে থাকে ভোক্তারা। তারা মাইক্রোসফটের এসব পণ্যের সাথে নিজেদের সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পায় সহজেই। সেখানে অ্যাপল’র পণ্যগুলো অনেকটাই রাজা বা রানির মতো, যা দেখতে অনেক বেশি সুন্দর হলেও তার সাথে সহজে নিজেকে মানিয়ে নেওয়া যায় না।’ এখন দেখার বিষয় গ্রাহকদের এসব মনোভাবকে কতটা গুরুত্ব দিয়ে নিজেদের আবারও শীর্ষ আসনে ফিরে নিয়ে যেতে পারে অ্যাপল।

সূত্রঃ ইন্টারনেট

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।