অপুর_পাঁচালি“আমার চরিত্রের নাম অসীমা৷ অসীমা গ্রামের মেয়ে৷ স্বামী তার কাছে সব৷ এমন একটা রোলে অভিনয় করাটা সত্যি বেশ চ্যালেঞ্জিং ছিল৷ তবে আমি পুরোপুরি কৌশিকদার (পরিচালক কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়) উপর নির্ভরশীল ছিলাম৷ আর আমি নিজে যত না কনফিডেণ্ট ছিলাম, কৌশিকদা অনেক বেশি ভরসা রেখেছিলেন আমার উপর”–জানালেন, পার্ণো মিত্র৷ ‘অপুর পাঁচালি’-র অন্যতম মুখ্য চরিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে এমনই  অভিব্যক্তি ছিল তাঁর৷ কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের ছবি মানেই নতুন ভাবনার উন্মেষ৷ তাঁর ঘরানার ছবি নিয়ে তাই নির্মাণস্তর থেকেই আলোচনার বাজার গরম থাকে৷ যার ব্যতিক্রম নয় ‘অপুর পাঁচালি’ও৷ ছবির ফার্স্ট লুক দেখানো হয়েছিল কলকাতা ফিল্মোত্সবের ফিল্ম মার্ট-এ৷ সেখানে কৌশিক, পার্ণো ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংগীত পরিচালক ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্ত, অর্ধেন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়, গৌরব চট্টোপাধ্যায় ও শীর্ষ রায়৷ কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় স্পষ্টতই ছিলেন আবেগাপ্লুত৷ বললেন, “এই প্রথমবার ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে কোনও ছবির প্রথম লুক লঞ্চ করা হল৷ ধন্যবাদ সিআইআই-কে (কনফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রি)৷ ইতিমধ্যেই গোয়াতে হয়ে গিয়েছে ‘অপুর পাঁচালি’-র ইণ্টারন্যাশনাল সি্নিং৷ সংগীত পরিচালক ইন্দ্রদীপ দাশগুপ্তের কথায়, ‘অপুর পাঁচালি’ বাঙালি জীবনে পাঁচালি হয়ে থাকবে বলে মনে করি৷ গৌরব জানান, “আমার চরিত্রটা খুব ইণ্টারেস্টিং৷ ছবিতে আমি একজন এসআরএফটিআই ছাত্র৷” ‘অপুর পাঁচালি’-র আর এক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র সুবীর বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন অর্ধেন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বললেন, “আমি সুবীরের রোলটা করছি৷ প্রথমে খুব নার্ভাস লাগছিল৷ পরিচালক খুব সাহায্য করেছেন৷ ফলে, নার্ভাসনেস কাটিয়ে কাজটা করতে পেরেছি৷” ছবিতে অপুর ভূমিকায় আছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, এ খবর ইতিমধ্যেই সবার জানা৷ সুবীর বন্দ্যোপাধ্যায়–যাঁকে ঘরে গল্প পল্লবিত, তাঁরই তরুণ বয়সের চরিত্রটি করছেন পরমব্রত৷ আর বয়স্ক রোলটি দেখা যাবে অর্ধেন্দুর অভিনয়ে৷ এদিন অবশ্য পরমব্রত অনুপস্থিত ছিলেন৷ মুক্তি প্রতীক্ষিত ‘অপুর পাঁচালি’ নিয়ে বাঙালি দর্শকের মধ্যে আগ্রহের উত্তাপ ক্রমশ বাড়ছে, বলাই বাহুল্য৷

টি মন্তব্য

মন্তব্য বন্ধ

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।