মার্কিন গায়িকা ও অভিনেত্রী বিয়োন্সে নোয়েল সার্চ ইঞ্জিন বিং এর ২০১৩ সালের সবচেয়ে সার্চ হওয়া নাম। বিশ্বব্যাপী এই সার্চ ইঞ্জিনে বিয়োন্সের নাম নি উজ, ছবি খোঁজা হয়েছে। সোমবার বিং এ তথ্য প্রকাশ করে। খবর ডিএনএ.কমের। ২০১২ সালের সেরা কিম তার্দাশিয়ান দ্বিতীয় অবস্থানে এসেছেন এ বছর।

২০১২ সালে বছরের শ্রেষ্ঠ সুন্দরীর মর্যাদা জয়ী ব্যক্তি জীবনে র্যাপার জে-জেডের স্ত্রী বিয়োন্সী। বিয়োন্স ভক্তরা বেশ ভালোই জানেন শুধু গানেই নয় বিয়োন্স আরো অনেক ক্ষেত্রেই প্রতিভাময়ী। প্রথমেই বলতে হবে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের কথা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম সেরা। একজন ফ্যাশন ডিজাইনার তিনি। তার করা ডিজাইনের কাপড় ছড়িয়ে পড়ছে সারা বিশ্বে। বিয়োন্সের ফ্যাশন হাউজের নাম ‘হাউজ অব ডিরিয়ন’। মূলত মেয়েদের পোশাকের ডিজাইন করে থাকেন বিয়োন্স। তবে সামনে ছেলেদের জ্যাকেট, সোয়েটার আর ক্যাপের ওপর ডিজাইনেরও আগ্রহ আছে তার। গায়িকা, ফ্যাশন ডিজাইনার বিয়োন্স সমান সফল হলিউডি ছবিতেও। তার অভিনীত বেশ কয়েকটি ছবি এরই মধ্যে মুক্তি পেয়েছে। ছবিগুলো দারুণ সফলও হয়েছে বক্স অফিসে। বিশেষ করে তার প্রথম ছবি যেটিতে তিনি অভিনয় করেছিলেন একজন পপ গায়িকার ভূমিকাতেই। সেই ‘দি রবার্ট অব পিঙ্ক প্যান্থার’ ছবি দিয়ে দর্শকের অনেক কাছে আসেন বিয়োন্স। একাধারে বেশ কয়েকটি কাজ করেন বিয়োন্স, সাথে স্টেজ শো তো রয়েছেই। কি করে তিনি এতো সময় করেন? বিয়োন্স বলেন, আমার পরিশ্রম করার মানসিকতা রয়েছে এবং আমি পরিশ্রম করি। এতো কথা বলতে বলতে বিয়োন্সের অন্য একটি প্রতিভার কথা বাদই পড়ে যাচ্ছিল। পাঠকরা জেনে নিন যে বিয়োন্স একজন ভালো লেখকও। । এর আগে বিজনেস ম্যাগাজিন ফোর্বসের এক পরিসংখ্যানে সবচেয়ে ধনী তারকা দম্পতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন র্যাপার জে-জি এবং তার স্ত্রী পপতারকা বিয়োন্সি নোলস। রয়টার্স জানায়, ২০১৩ সালের সবচেয়ে বেশি আয়কারী দম্পতির তালিকার শীর্ষস্থানটি দখল করেছেন জে-জি এবং বিয়োন্সি। ২০১২ সালের জুন থেকে ২০১৩ সালের জুন মাস পর্যন্ত ওই দম্পতি যৌথভাবে ৯ কোটি ৫০ লাখ ডলার ব্যাংকে জমা রাখেন। তাদের অ্যালবাম বিক্রি, কনসার্ট এবং ব্যবসা থেকে তারা এই অর্থ আয় করেন। ফোর্বসের বরাতে সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ২০১২ সালে বেশ ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন ওই দম্পতি। সম্প্রতি জে-জি র ‘ওয়াচ দি থর্নস’ সফরে তিনি কেনি ওয়েস্টের সঙ্গে উপস্থাপনা করেছিলেন। তার ওই বিশ্ব সফরে তিনি প্রতি রাতে ১৪ লাখ ডলার আয় করেন। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে মেয়ে ব্লু আইভির জন্মের পর কিছুদিনের জন্য লাইম লাইট থেকে দূরে ছিলেন বিয়োন্সি। বিরতির পরই তিনি ‘মিস কার্টার’ ওয়ার্ল্ড ট্যুরে তার প্রতিটি রাতের উপস্থাপনার জন্য ২০ লাখ ডলার আয় করেন।latest-2013-beyonce-wallpaper

শুধু গানের জগতে নয় নিজেদের ব্যবসা থেকেও উপার্জন করছেন ওই দম্পতি। তারা নিজেদের একটি ক্রীড়া সংস্থা খোলারও প্রস্তুতি নিচ্ছেন। সংস্থাটির নাম ‘রক ন্যাশন’।

‘মোস্ট বিউটিফুল ওমেন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’, এটি কোনো সুন্দরী প্রতিযোগিতার খেতাব নয়। বিশ্বখ্যাত পিপল ম্যাগাজিন প্রতি বছর পাঠকের জরিপে হলিউড-সুন্দরীদের মধ্যে একজনকে এই উপাধি দিয়ে থাকে। ২০১২ সালের সেরা সুন্দরীর এই উপাধি জিতে নিয়েছেন নিউ-মাম পপস্টার বিয়োন্স নোয়েল।পিপল ম্যাগাজিনের প্রতি বছর বেশ কিছু জরিপ পরিচালনা করে থাকে। যার মধ্যে অন্যতম হলো ‘মোস্ট বিউটিফুল ওমেন ইন দ্য ওয়ার্ল্ড’। পাঠকদের ভোটেই নির্বাচিত হন বর্ষ সেরা সুন্দরী।বিয়োন্সে নোয়েল ব্যক্তি জীবনে র্যাপার জে-জেডের স্ত্রী। ব্লু আইভি নামে এই দম্পতির একটি কন্যা সন্তান আছে। ৩০ বছর বয়সী বিয়োন্সে পাঠক জরিপে বিশ্বব্রম্মা-ের সুন্দরীতমা উপাধি পাওয়ার অনুভূতি জানিয়ে বলেন, ‘এটি আমার জন্য একটি দামি উপহার। খুব খুশি আমি পাঠকদের রায় পেয়ে। সন্তানের মা হওয়ার পর আমার সৌন্দর্য বেড়ে গেছে বলে মনে করি। মাতৃত্ব সত্যিই সবসময় সুন্দর। এই মর্যাদা পাওয়ার পুরো কৃতিত্বই আমি আমার মেয়ে ব্লু আইভিকে দিতে চাই’।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।