সুতির শাড়ি আর প্রিন্টেড ব্লাউজ। এবারের পুজোয় ফ্যাশনেবল বাঙালি রমনীরা সেজে উঠবেন এভাবেই। শুনে নাক কোঁচাকাচ্ছেন? ভাবছেন, সকালটাতো সুতির শাড়িতে কাটানো গেল, কিন্তু সন্ধ্যাবেলায় সুতি? জানিয়ে রাখি, এবারের পুজোর এটাই স্টাইল স্টেটমেন্ট। সকাল হোক সন্ধে, শাড়ি হবে সুতিরই। শুধু বদলে যেতে পারে ব্লাউজ।

1286956136_DSC_0308

সুতির শাড়িতে এবার পুজোয়ে পছন্দের তালিকায় ওপরের দিকে থাকবে সাউথ কটন। কেরালা কটন, মহারাষ্ট্র কটন, মঙ্গলগিরি, খেস, তাঁত, কলমকরি, ভেজিটেবিল প্রিন্টের ছাপা শাড়ি, খাদির শাড়িই কাঁপাবে পুজো প্যান্ডেল। রঙের তালিকাতেও রয়েছে সমস্ত গাঢ় রঙ। লাল, কমলা, সবুজ, মেরুন, ম্যাজেন্টা, উজ্জ্বল হলুদ, গাঢ় নীল যে কোনও উজ্জ্বল রঙই যাবে এবারের আবহাওয়ার সঙ্গে। সকাল বেলায় পরতে হলে সঙ্গে বেছে নিতে পারেন কন্ট্রাস্ট সুতির প্রিন্টেড ব্লাউজ। কমলার ওপর সবুজ, লালের ওপর হলুদ, নীলের ওপর সবুজ, হলুদের ওপর সবুজ, লালের ওপর কালো-এবার পুজোয় রঙ নিয়ে খেলুন যেমন খুশি, ইচ্ছেমত। ভীষণরকম ইন কলমকরি ব্লাউজও। লাল, খয়েরি, কালো, কমলা কলমকরি ব্লাউজ পরা যায় যে কোনও রঙের কনট্রাস্ট শাড়ির সঙ্গে।

এইসব শাড়ি রাতেও চলবে। শুধু সুতির ব্লাউজের বদলে বেছে নিন জমকালো প্রিন্টের চান্দেরি বা ব্রোকেড। একই ভাবে শাড়ির রঙের সঙ্গে কনট্রাস্ট করে পরে নিন ব্লাউজ। বদলে নিন গয়না। সকালে যদি বিডস, কাঠ বা সুতোর গয়না পরেন, রাতে শাড়ির সঙ্গে ম্যাচ করে পরতে পারেন রুপো বা সোনা। তবে মনে রাখবেন রুপোর গয়না হবে ভারী, কিন্তু সোনার কিছু পরলে চেষ্টা করুন হালকা কিছু পরতে। সকালের মেক আপই হাল্কা টাচ আপে গাঢ় করে নিন সামান্য।

 আর যদি চান একটু জমকালো, ভারী শাড়ি তবে এবারে পুজোয় শীর্ষ থাকবে বাই কালার ঢাকাই। এই শাড়ির অর্ধেকটা এক রঙের, বাকিটা অন্য রঙের। লাল-হলুদ, লাল-ছাইরঙ, কালো-লাল, গোলাপি-কালো এইসব রঙের ঢাকাই রয়েছে ফ্যাশন তালিকার একেবারে উপরের দিকে। দামটা একটু বেশির দিকে। তবে অষ্টমীর অঞ্জলি বা বিসর্জনের সিঁদুর খেলায় সবাইকে ক্লিন বোল্ড করতে পারে একমাত্র ঢাকাই শাড়িই।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।