অস্থি বা হাড় আমাদের দৈহিক কাঠামো তৈরী করে। এছাড়াও আভ্যন্তরীণ অঙ্গপ্রত্যঙ্গ রক্ষায়ও বেশ বড় ভূমিকা রাখে অস্থি। শুধু বয়স্কদের নয় অপেক্ষাকৃত তরুণদের হাড়ও দুর্বল হতে পারে। অনেককেই দেখা যায় খাওয়ার ক্ষেত্রে খুবই অনীহা কাজ করে। খাদ্য তালিকায় নিয়মিত কিছু আইটেম যোগ করলেই শক্তিশালী হয়ে উঠতে পারে আপনার অস্থিমজ্জা।bone

দুধ: মায়েরা কেন আমাদের পেছনে দুধের গ্লাস নিয়ে ছুটতেন তা নিয়ে কোন সন্দেহই নেই। তরল পানীয়ের মধ্যে একমাত্র দুধই সবচাইতে বেশি মানবদেহের জন্য উপকারী। ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি’র অন্যতম উৎস দুধ অস্থির স্বাস্থ্য রক্ষায় বেশ কার্যকর। অবশ্য পনির, মাখনের মত দুগ্ধজাত পণ্যও ক্যালসিয়ামের বিকল্প উৎস হতে পারে। যদিও এসবে ভিটামিন ডি খুব একটা থাকে না। তবে ফ্যাটের বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে।

বীজ ও বাদাম: ছোট আকৃতির বলে বাদামকে গুরুত্বহীন ভাবা যাবে না। আমন্ড বা অন্যান্য বাদাম হাড়ের ক্ষয়রোধ করে। এছাড়াও মিষ্টিকুমড়ার বীজেও প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে যা ক্যালসিয়াম মেটাবোলিজমে সাহায্য করে।

আখরোট: ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিদে পূর্ণ থাকে আখরোটের অনেক গুণ। কিন্তু বিশেষভাবে বলা যায় যে আলফালিনোলেইক অম্লত্বের কারণে হাড় শক্ত হয়।

গাজর: কমলা রঙের এই সবজিতে রয়েছে আলফা-ক্যারোটিন, বেটা ক্যারোটিনসহ বেটাক্রিপটোজ্যানথিন। সবকিছু মিলিয়ে গাজর অস্থির তারুন্য রক্ষায় বেশ উপযোগী। এছাড়াও চোখের জ্যোতিও ও ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ায় গাজর।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।