বিয়েটা যদি হয় মনের গহিনে লুকিয়ে থাকা স্বপ্নগুলো ছুঁয়ে দেখার সোপান তাহলে সে স্বপ্নের চেয়েওমধুর কিন্তু স্বপ্নচূড়ার ঠিকানাটি। কারণ এ সোপান বেয়ে হয়তো স্বপ্নগুলো ঠিকই ধরা হয়ে যায়,কিন্তু সে স্বপ্নচূড়ার ঠিকানায় পা রাখার এ দিনটি কিন্তু সবার জীবনে বার বার ফিরে আসে না।তাই গহনার ক্ষেত্রে বিয়ের দিনটিতে অন্তত ঘটুক চাওয়া-পাওয়ার পূর্ণ সনি্নবেশ। নতুন জীবনেরসোপানে পা রাখার এ সময়টায় চাওয়া-পাওয়ার কোনো কমতি যেন না ঘটে এটাই সবারপ্রত্যাশা। আর এ ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি যে বিষয়টি গুরুত্ব পায় তা হলো বিয়ের গহনা।

বধূর সাজ

বধূর সাজ

তবে আজকাল সোনার গহনার পাশাপাশি মেয়েদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে আরও বিভিন্নউপকরণের গহনাও। তাই আজকের এ আয়োজনে থাকছে মেয়েরা বিয়েতে কোন গহনা পরতেপছন্দ করে আর নানা উপকরণের এসব গহনা পাবেনই বা কোথায় তা নিয়ে বিস্তারিতআলোচনা।

সোনার গহনা : সোনার গহনা ছাড়া নতুন বউয়ের সাজটা যেন অসম্পূর্ণ থেকে যায়। তা ছাড়া বিয়েতে সোনার গহনা পরবেনা এমনটা যেন হতেই পারে না। আজকাল শুধু ঘন পেটানো খাঁটি গিনি সোনার ডিজাইন তেমন একটা দেখা যায় না। এখনকারসোনার গহনাগুলোয় থাকছে কিছুটা হালকা ডিজাইনে পুঁতি আর পাথরের মিশেল। এ ছাড়া থাকছে মুক্তার ব্যবহারও। এ ক্ষেত্রেবিয়ের পোশাকের সঙ্গে মানানসই রঙের স্টোন ও পুঁতির ব্যবহারটাই বেশি লক্ষণীয়। কালারের ক্ষেত্রেও বৈচিত্র্য এসেছেএখনকার সোনায়। হলদে ও সাদা সোনার পাশাপাশি রোজ গোল্ড বা গোলাপি সোনার ব্যবহারও দেখা যাচ্ছে প্রচলিত গহনায়।অনেকে আবার পোশাকের রঙের সঙ্গে পারফেক্ট ম্যাচিংয়ে মিনা করিয়েও নিচ্ছেন বিয়ের গহনায়। সোনার গহনা কিনতে যেতেপারেন বায়তুল মোকাররম, নিউমার্কেট, বসুন্ধরা সিটি, রাপা প্লাজা, মাসকট প্লাজা, রাইফেলস স্কয়ার, গুলশান পিঙ্ক সিটি শপিংকমপ্লেক্সসহ অন্য মার্কেটগুলোতে।

হীরার গহনা : বর্তমানে সোনার গহনার সঙ্গে সঙ্গে হীরার গহনাও বাঙালি নারীর সাজে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এটাঅনেকটা অভিজাত্যের প্রতীক। তাই সোনার গহনার পাশাপাশি হীরার গহনার প্রতি আজকাল তরুণীদের একটা বিশেষ ঝোঁকলক্ষ করা যায়। হীরার গহনার মধ্যে ছোট ছোট নকশার গহনাগুলোই ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে। এ ক্ষেত্রেহীরার আংটি, নাকফুল আর কানের দুলের চাহিদাই বেশি। তবে অনেকে আবার হীরার লকেট পরতেই বেশি পছন্দ করেন।আমাদের দেশে যেসব হীরা পাওয়া যায় সেগুলো মূলত ভারত, সিঙ্গাপুর, বেলজিয়াম ও দুবাই থেকে আসে। হীরার গহনারসন্ধানে যেতে পারেন ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড, ডায়াগোল্ড বা নিউ জড়োয়া হাউসের মতো দোকানে।
রুপার গহনা : বিয়েতে রুপার গহনা খুব বেশি একটা পরতে দেখা যায় না। তবে আজকাল কিছু কিছু মেয়ে নিজের বিয়েটাকেএকটু ব্যতিক্রমী করতে রুপার গহনা পরেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন। আবার যারা বিয়েতে রুপা পরতে চান না তারা অনেকেইকিন্তু গায়ে হলুদে ফুলের পরিবর্তে রূপার গহনাই ফ্যাশন ট্রেন্ড মনে করছেন। ফলে বিয়ে উপলক্ষে কিন্তু রুপাটা পরা হচ্ছেই।রুপার গহনার ক্ষেত্রে কানে একটু লম্বা টাইপের দুলই বেশি মানানসই। হাতে দুই-একটি চুড়ি আর গলায় অবশ্যই ভারি কিছু পরাউচিত। কারণ গায়ে হলুদের শাড়ি যেহেতু খুব একটা জমকালো হয় না সে ক্ষেত্রে গলায় ভারী কিছু না পরলে ম্যাচিংটা ভালোহয় না। এগুলো আপনি পাবেন চাঁদনী চক, গাউছিয়া, মৌচাক মার্কেটসহ বিভিন্ন শপিং মলে।

গোল্ডপ্লেট : সোনার গহনার সঙ্গে অনেকটা পাল্লা দিয়েই বাড়ছে গোল্ডপ্লেটেড গহনার চাহিদা। কারণ সোনার দাম আকাশচুম্বীহওয়ায় অনেকেই চাহিদামতো সেগুলো কিনতে পারেন না। সেদিক থেকে গোল্ডপ্লেটেড গহনাগুলো চাহিদামতো কেনা যাচ্ছেঅনেক কম খরচেই। আর এগুলো দেখতে অনেকটা সোনার গহনার মতো মনে হওয়ায় অনেকে এগুলো পরেই সেরে নিচ্ছেনবিয়ের কাজটি। গোল্ডপ্লেটেড গহনাগুলো গোল্ড কালার না করে আপনি এন্টিক কালার কিংবা কপার কালারেরও করে নিতেপারেন। আর তাতে পছন্দমতো বসিয়ে নিতে পারেন বিভিন্ন দামি পাথর, মুক্তা এমনকি ডায়মন্ড ডাস্টও। আর নকশা কিছুটাহালকা হলেই ভালো। তবে এখন কিন্তু গহনার ফ্যাশনে মোগল আমলের নকশাগুলোই আবার ফিরে এসেছে। গোল্ডপ্লেটেডগহনাগুলোর খোঁজে যেতে পারেন মৌচাক মার্কেট, গাউছিয়া, চাঁদনী চক, মেট্রো শপিং মল, রাপা প্লাজা, মাসকট প্লাজা, ইস্টার্নপ্লাজা ও বসুন্ধরা সিটিসহ অন্য মার্কেটগুলোয়।

এবার আসুন জেনে নেওয়া যাক বিয়েতে শরীরের কোন কোন অঙ্গে কোন কোন গহনা পরতে পারেন আপনি। গলায় জড়াতেপারেন অর্ধহার, চন্দ্রহার, পাটিহার, চারনরী, পাঁচনরী, সাতনরী, গোটহার, প্রালম্বক, একাবলি, কণ্ঠী, মধ্যমণি, ফুলোহার,মতিহার, রশ্মিমালা, চেন, মালা, নেকলেস, লকেট, শেলি, হাঁসুলি ইত্যাদি। কানে পরতে পারেন কর্ণপালি, কণিকা, কর্ণদর্পণ,কর্ণপুর, ইয়ারিং, কর্ণমালা, কানবালা, ঝুমকা, টব, চৌদামি, বারবৌরি, দুল, মাকড়ি ইত্যাদি। হাতে শোভা পাবে চুড়ি, কঙ্কণ,বালা, আর্মলেট, চূড়, টাড়, বলয়, অনঙ্গ, অঙ্গদ, বাউটি, ব্রেসলেট, বাহুবন্ধ, বাজুবন্ধ, পইছা, রতনচূড়, নোয়া, মানতাসা, প্রতিশরইত্যাদি। মাথায় পরুন মুকুট, তাজ, সিঁথিমোর, কিরীট, শেখর, শিরোমণি, টোপর, কলগা, মোর, মৌলি ইত্যাদি। নাকে নথ,নোলক, নাকসোনা, নাকছাবি, বেশর, টানা ইত্যাদি পরতে পারেন। কোমরে জড়াতে পারেন কিঞ্চিনি, কোমরবন্ধ, কটিসূত্র,কটিবন্ধ, চন্দ্রহার, বিছা, মেখলা ইত্যাদি। আর সবশেষে পায়ে পরতে পারেন নূপুর , ঘুঙুর, পায়জোর, মল, গুঁড়বাঁধ, আনোট,তোড়া গুজারি, পাষক ইত্যাদি।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।