sohana

ওড়না শুধু সালোয়ার-কামিজের অনুষঙ্গ নয়, এটি আপনার পোশাক ও ব্যক্তিত্বে এনে দিতে পারে ভিন্ন মাত্রা, তৈরি করতে পারে স্টাইল স্টেটমেন্টও। ওড়নার ওপর ভিত্তি করেই বানানো যায় সালোয়ার-কামিজ। সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে মিলিয়ে ওড়না নিতে হয়—ফ্যাশনের এ ধারণা এখন বদলে গেছে অনেকাংশে। বরং ওড়নার সঙ্গে মিলিয়ে তৈরি করতে পারেন সালোয়ার-কামিজ।
ফ্যাশনেবল ওড়না

ফ্যাশনের মজাটাই অন্য রকম। একটু এদিক-ওদিক করে নিলেই তৈরি হয়ে যায় নতুন স্টাইল। এত দিন কামিজ ও সালোয়ারের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হতো পুরো সেটটি। নতুনত্ব আনতে এখন করা হচ্ছে উল্টো কাজটি। ফ্যাশন ডিজাইনার বিপ্লব সাহা বলেন, ওড়নাটি হাইলাইট করে সালোয়ার-কামিজ তৈরি করা যায়। যেকোনো মেয়েকেই এ স্টাইলে স্মার্ট লাগবে। এখানে রং মিলিয়ে পরার বিষয়টি নিয়েও ভাবতে হয় না। মানাবে কি মানাবে না, সেটি নিয়েও চিন্তা করতে হয় না।
বাজার ঘুরে

শুধু ওড়না কিনতে পাওয়া যায় এখন অনেক দোকানে। সুতি থেকে শুরু করে সিল্ক—সব কাপড়ের ওড়নাই পাওয়া যাচ্ছে। কখনো সেগুলোতে ব্লকপ্রিন্ট, টাইডাই, বাটিকের বিভিন্ন রঙের খেলা, ভেজিটেবল ডাই, স্ক্রিনপ্রিন্ট, হ্যান্ডপেইন্টের কাজ করা হচ্ছে চমৎকারভাবে। পাশাপাশি ফুটিয়ে তোলা হচ্ছে গ্রামবাংলার কাঁথাস্টিচের কাজও। জামদানি, মসলিনের ওড়নায় ভারী কাজ, অ্যান্ডি-সিল্ক মিশ্রিত, অ্যান্ডি-খাদি বা সুতি মিশ্রিত ওড়নাও চলছে পুরোদমে। স্টাইলিশ এসব ওড়না একরঙা কামিজ-সালোয়ার অথবা হালকা কাজের কামিজের সঙ্গে ভালো মানায়।
তবে কিছু কিছু ওড়নার উপকরণ ঘরের আলমারিতেই পড়ে থাকে বছরের পর বছর। দাদি-নানির পুরোনো কাতান শাড়ি অথবা মায়ের বেনারসিটির কথা মনে পড়ে কি? অনেক দিনের পুরোনো শাড়িটি কোথাও কোথাও হয়তো ফেসে গেছে। নষ্ট হয়ে যাওয়া জায়গাগুলো বাদ দিয়ে সহজেই তৈরি করে ফেলা যায় অনন্য একটি ওড়না। জমকালো দাওয়াতে আপনার ওড়নাটিই সবার নজর কাড়বে। বিয়ের শাড়ির সঙ্গে পরা জমকালো ওড়নাটিও আবার নতুনভাবে ব্যবহার করতে পারেন। এর সঙ্গে বানিয়ে নিতে পারেন নতুন এক সেট সালোয়ার-কামিজ।

টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Note: All are Not copyrighted , Some post are collected from internet. || বিঃদ্রঃ সকল পোস্ট বিনোদন প্লাসের নিজস্ব লেখা নয়। কিছু ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহীত ।